• মঙ্গলবার ০৫ মার্চ ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ২১ ১৪৩০

  • || ২৩ শা'বান ১৪৪৫

সর্বশেষ:
ভবন নির্মাণে বিল্ডিং কোড অনুসরণ নিশ্চিত করুন: প্রধানমন্ত্রী কোনো অজুহাতেই যৌন নিপীড়ককে ছাড় নয়: শিক্ষামন্ত্রী স্পর্শকাতর মামলার সাজা নিশ্চিত করতে হবে: আইজিপি চলতি মাসেই একাধিক কালবৈশাখীর শঙ্কা সিন্ডিকেটের মাধ্যমে দেশদ্রোহীরা মানুষকে কষ্ট দেয়: নাছিম

সঙ্গীর সঙ্গে যে কাজটি করলে ভালোবাসা বাড়বে দশগুণ

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১৫ জানুয়ারি ২০২৩  

কী এমন বিশেষ গুণ যা প্রেমকে ফুরফুরে রাখে। ভালোবাসার সম্পর্ক সর্বদা উজ্জীবিত রাখতে কোন মহৌষধ সবথেকে জরুরি বলুন তো? 

প্রেম সম্পর্কের সঙ্গেই জড়িয়ে থাকে বিরহ আবার প্রেমেই প্রতিটি বাঁকে আসে সেই চিরাচরিত রাগ-অনুরাগ, মান-অভিমান পর্ব। ভালোবাসায় মান-অভিমান, হালকা খুঁনসুটি, চোখে পানি ইত্যাদি পর্ব থাকবে না এমনটা বোধহয় ভাবাই যায় না। কিন্তু কী এমন বিশেষ গুণ যা প্রেমকে ফুরফুরে রাখে। ভালোবাসার সম্পর্ক সর্বদা উজ্জীবিত রাখতে কোন মহৌষধ সবথেকে জরুরি বলুন তো?

বিশেষজ্ঞরা বলছেন ভালোবাসা আরো গভীর হয় ঝগড়ার সহযোগে। অর্থাৎ, ঝগড়া করে যারা, প্রেম বেশি তাদের মধ্যেই! প্রচলিত কথায় এমনটা শোনা গেলেও এবার কিন্তু বিজ্ঞানের দাবিতেই উঠে এসেছে এই তথ্য। অন্তত এবার এমনটাই দাবি করছেন গবেষকরাও। 

ঝগড়া যাদের বেশি তাদের মধ্যে ভাব-ভালোবাসাও বেশি এমনটাই মনে করা হয়। এটা জানার জন্য অবশ্য কোনো মনোবিজ্ঞানীর প্রয়োজন পড়ে না। যে কোনো অনুভূতিশীল মানুষ, বিবাহিত অথবা সিরিয়াস সম্পর্কে রয়েছেন এমন কেউ যদি হন, তবে তিনি নিজেকে দিয়েই সেটা বুঝতে পারবেন। 

কাছের মানুষের সঙ্গে ধুন্ধুমার ঝগড়া করার বেশ কিছুক্ষণ পর যখন মন কেমন করে, অথবা সেই মনের মানুষ রেগেমেগে মোবাইল বন্ধ করে রাখে, ঠিক তখন নিজেই যখন আবার ফোন করেন, আর তখনই ঝগড়াকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে জিতে যায় প্রেম। তবে সাধারণ বুদ্ধি-বিবেচনায় অনেকেই সেটা বুঝতে পারে না। 

‘গার্ডিয়ান’-এ প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে এ ব্যাপারে সম্পর্ক বিশেষজ্ঞ জোসেফ গ্রেনিকে উদ্ধৃত করা হয়েছে। গ্রেনি হলেন সম্পর্ক সংক্রান্ত ‘ক্রুশিয়াল কনভারসেশন’-এর সহ-রচয়িতা। তার মতে, দম্পতিদের সবচেয়ে বড় ভুল হলো এড়িয়ে যাওয়া। আমরা ভাবি কিন্তু মুখে বলি না, অন্তত যতক্ষণ না পুরো ব্যাপারটা অসহ্য হয়ে ওঠে, ততক্ষণ পর্যন্ত না।

আমরা আসলে এই সব কথোপকথনগুলো এড়িয়ে যাই এটা ভেবে যে, বললে অনেক কিছু হতে পারে। কিন্তু আমরা এটা বুঝি না যে না বললেও অনেক কিছু হতে পারে। 

এই প্রতিবেদনে প্রকাশিত একটি সমীক্ষার ফলাফল বলছে, যে সব দম্পতিরা ঝগড়া করেন, তারাই সম্পর্কের দিক থেকে অনেক বেশি সুখী। তাদের থেকে, যারা সচরাচর সব মতান্তর-মনান্তর লুকিয়ে রাখেন তারা অপেক্ষাকৃত কম সুখী।

এই সংক্রান্ত একাধিক মার্কিন গবেষণার ফলাফলও তাই বলছে। একটি সাম্প্রতিক গবেষণায় জানা গেছে, ৪৪ শতাংশ মার্কিন দম্পতি মনে করেন যে সপ্তাহে অন্তত একবার গুছিয়ে ঝগড়া হওয়ার মানে তাদের পারস্পরিক যোগাযোগ বেশ ভালো।

আসলে সম্পর্কে ঝগড়া যত বেশি, তত বেশি উষ্ণ সেই সম্পর্ক। পরস্পরের কাজ নিয়ে, ভাবনা নিয়ে প্রশ্ন তোলা, তার সমালোচনা করা অথবা অভিমান করা, এই সব কিছুই সম্পর্ককে উজ্জীবিত রাখে।