• সোমবার ২০ মে ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৬ ১৪৩১

  • || ১১ জ্বিলকদ ১৪৪৫

ফুল দিয়ে হোক ত্বকের পরিচর্যা!   

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩  

 
বসন্তে বাহারি রঙের ফুল দিয়ে নিজেকে সাজিয়ে নিতে পারবেন—এ বিষয় নিয়ে সন্দেহ থাকার কথা নয়। তবে নিজেকে সাজানোর জন্য প্রাকৃতিকভাবে ত্বকের পরিচর্যার কথাও ভেবে নিতে হয়। আজকাল বাজারচলতি প্রসাধনী এড়িয়ে অনেকেই ঘরোয়াভাবে ত্বকের পরিচর্যার দিকে ঝুঁকছেন। 

এভাবে সময় বেশি লাগলেও অন্তত ত্বকের পরিচর্যার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয় না। কিন্তু আপনি কি জানেন ফুল দিয়েও ত্বকের পরিচর্যা করা সম্ভব? এই বসন্তে চারদিকে এত ফুলের ছড়াছড়ি যে ফুল ব্যবহার না করাটা মন্দই হবে। 

ত্বকে ফুলের পরিচর্যার ক্ষেত্রে যা যা পদ্ধতি অনুসরণ করতে পারেন: 

গোলাপ ফুলের পাপড়ির পেস্ট বানিয়ে নিন। এর সঙ্গে মধু ও লাল আটা মেশান। এই মিশ্রণ ত্বকে লাগালে ত্বক সতেজ হয়। এই পদ্ধতি সপ্তাহে অন্তত একদিন লাগাতে পারলে উপকার পাবেন অনেক।

গোলাপের পাপড়ির গুণ এখানেই শেষ নয়। যেমন গোলাপের পাপড়ি দুধে ভিজিয়ে হাত দিয়ে থেঁতো করুন। তারপর চিনি দিয়ে ঠোটে তা ঘষে ধুয়ে ফেলুন। এই পদ্ধতি আপনার ঠোটের উজ্জ্বলতা বাড়াতে পারে।

গাঁদা ফুল ও তিল সমান পরিমাণে বেটে নিন। সঙ্গে নিমের তেল মিশিয়ে ত্বকে ব্যবহার করুন। এভাবে ব্রণর সমস্যা থেকে নিস্তার পাবেন।

লাল জবা ফুলের সঙ্গে অ্যালোভেরা ও মধু মেশান। এই প্যাকটি ত্বক সতেজ করতে কার্যকর। আবার এরসঙ্গে চালের গুঁড়া মেশাতে পারলে ত্বকের মৃত কোষও দূর হবে।

হলুদ রঙের ডালিয়া বেটে সামান্য সয়াবিন গুড়া যোগ করুন যেন প্যাকটি স্বাভাবিক পুরুত্ব পায়। এগুলো ত্বকের জীবাণু সংক্রমণ রোধে সাহায্য করে।

রজনীগন্ধা বেটে ১ টেবিল চামচ পরিমাণ নিন এবং সঙ্গে আধা চা-চামচ দুধ, আধা চা-চামচ মধু এবং আধা চা-চামচ বেসন যোগ করুন। এই প্যাক আপনার ত্বকে ছত্রাক-প্রতিরোধী ভূমিকা পালন করবে। মাসে একবার ব্যবহার করতে পারেন।

ল্যাভেন্ডার ফুল সচরাচর দেশে বিরল। তবে এটি যদি পাওয়ার সুযোগ হয় তবে ত্বকে জীবাণু সংক্রমণ এড়ানোর উপায় সহজতর হয়। এটিও রজনীগন্ধার ওই প্যাকের মতো একই উপাদান ব্যবহার করে বানাতে পারেন। এবার শুধু রজনীগন্ধার বদলে ল্যাভেন্ডার ব্যবহার করবেন। যারা বাইরে প্রতিনিয়ত ঘুরাঘুরি করেন তাদের ত্বক যেকোনো জীবাণু থেকে সহজেই দূরে থাকবে।