• মঙ্গলবার   ০৬ ডিসেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২২ ১৪২৯

  • || ১১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

সর্বশেষ:
অসম্ভবকে সম্ভব করাই বাঙালির চরিত্র: প্রধানমন্ত্রী কক্সবাজারে ২৮ প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী বিএনপির সমাবেশ ঘিরে যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রস্তুত র‍্যাব গণতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে সরকার কাজ করছে: ওবায়দুল কাদের হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর কবরে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা

ডোমার উপজেলায় স্বস্তি ফিরেছে কাঁচাবাজারে 

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৭ এপ্রিল ২০২২  

নীলফামারীর ডোমার উপজেলায় অধিকাংশ সবজির দাম কমেছে। সেই সাথে মুরগির দাম কমলেও বেড়েছে গরুর মাংসের দাম। মাছের দাম স্থিতিশীল রয়েছে। রমজান মাসে জিনিস পত্রের দামে স্বস্তি ফিরেছে ক্রেতা-বিক্রেতাদের মাঝে।  

কাঁচামাল ব্যবসায়ী কালাম ইসলাম জানান, সব ধরনের কাঁচামালে দাম কমেছে। রমজানের আগে যে আলু ১৫ টাকা কেজি দাম ছিল। ওই আলু এখন ১২ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। ৫০ টাকা কেজির মোটা বেগুন ৪০ টাকা, ৩০ টাকা চিকন বেগুন ২৫ টাকা, ৫০ টাকার শসা ৩০ টাকা, ৬০ টাকার পটল ৫০ টাকা, ৩০ টাকার পিয়াজ ২৫ টাকা, ৬০ টাকার করল্লা ৫০ টাকা, ৮০ টাকার সজনা ৬০ টাকা ও ৩০ টাকার এক হালি লেবু ২৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। 

মুরগী ব্যবসায়ী হালিম ইসলাম জানান, রমজানের আগে সোনালী মুরগী ৩২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হতো। এখন তা ২৮০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। তবে ব্রয়লার মুরগী ১৫০ টাকা কেজি আগের দামেই বিক্রি হচ্ছে।   

মশলা ব্যবসায়ী শামিম ইসলাম জানান, সকল মশলা আগের দামেই আছে। শুধু জিরার দাম বেড়ে গেছে। ৩০ টাকায় একশ গ্রাম জিরা এখন ৪০ টাকা। হয়তো জিরার দাম আরো বেড়ে যাবে। 

আজিম ইসলাম নামে এক ক্রেতা জানান, প্রতি বছর রমজান মাসে সব জিনিসের দাম বেড়ে যায়। যদিও বর্তমান বাজার দরে মানুষের নাভিশ্বাস উঠেছে। তারপরও এবার রমজানে কিছুটা দাম কমায়, স্বস্তি ফিরেছে সাধারণ মানুষের মাঝে।  

ওলিয়ার রহমান নামের আরেক ক্রেতা জানান, বেশ কিছু জিনিসের দাম কমলেও গরুর মাংসের দাম দিন দিন বাড়ছেই। সাড়ে পাঁচশ টাকার গরুর মাংস ছয়শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। রমজান মাসে গরুর মাংস কেনা মুশকিল হয়ে পড়েছে।