• মঙ্গলবার   ০৪ অক্টোবর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ১৮ ১৪২৯

  • || ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

সর্বশেষ:
মুজিববর্ষে সরকারি ঘর পেয়েছে প্রায় ২ লাখ পরিবার: প্রধানমন্ত্রী আগামী প্রজন্মের জন্য পরিকল্পিত নগরায়ণের বিকল্প নেই: রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশ অঞ্চলের ৫০ লাখ ভিডিও সরিয়েছে টিকটক: টেলিযোগাযোগমন্ত্রী করতোয়ায় দেশের বৃহত্তম ওয়াই ব্রিজ হবে: রেলমন্ত্রী সুজন বিএনপি সুযোগ পেলে আবার নির্যাতন চালাবে: তোফায়েল আহমেদ

কম খরচে বেশী লাভ হওয়ায় ডোমারে বেড়েছে আখের চাষ

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১৩ আগস্ট ২০২২  

কম খরচে বেশী লাভ হওয়ায় ডোমারে বেড়েছে আখের চাষ                   
কম খরচে বেশী লাভ হওয়ায় নীলফামারীর ডোমারে বেড়েছে আখের চাষ। ভ্রাম্যমাণ বিক্রেতারা ক্ষেতেই চাষিদের কাছ থেকে আখ কিনে বাজারে ভালো দামে বিক্রি করছে। ফলে লাভবান হচ্ছেন চাষি ও ব্যবসায়ীরাও।

জানা যায়, উঁচু জমি, পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা থাকায় ডাঙ্গা ও সমতল জমিতে আখের ভালো উৎপাদন হয়। অন্যান্য ফসলের ন্যায় তুলনামুলক কম উৎপাদন খরচ ও অধিক দামে বিক্রয় হওয়ায় প্রতি বছর বেড়েছে আখ চাষির সংখ্যা। চলতি বছর আবহাওয়া অনুকূল থাকায় এ উপজেলায় আখ ক্ষেতে রোগবালাই কম। ফলে ফলনও ভালো হয়েছে। আখের ব্যাপক চাহিদা থাকার কারণে মাঠেই ভালো দাম পাচ্ছেন চাষিরা। এমনকি ভ্রাম্যমাণ বিক্রেতারা ক্ষেতেই চাষিদের কাছ থেকে আখ কিনে বাজারে ভালো দামে বিক্রি করেছেন। 

বোড়াগাড়ী ইউপির আখ চাষি জয়নাল আবেদীন, উপেন চন্দ্র রায়, হযরত আলী, আমিন এবং নুরুল হক বলেন, প্রায় ১০-১২ বছর থেকে আখ চাষ করছি। গত বছরের তুলনায় এ বছর বেশি চাষ করেছি। রোগবালাই কম হয়েছে। আবহাওয়া প্রচন্ড গরম চলছে। তাই বাজারে আখের প্রচুর চাহিদা। আখের প্রকার ভেদে প্রতি পিস ১০টাকা থেকে শুরু করে ৩০ টাকা দরে বিক্রি করা যাচ্ছে। হাইব্রীড (ইশ্বরদী-৪১/৪২) জাতের আখ প্রতি বিঘায় (৩৩ শতক) ৮০ হাজার থেকে এক লাখ টাকার বিক্রি করা হয়েছে। 

আখ চাষি এজার উদ্দিন বলেন, এক বিঘা জমিতে হাইব্রীড (ইশ্বরদী-৪১) জাতের আখ চাষ করেছি। ভালো ফলন হয়েছে। এবার ৭৫ হাজার টাকার আখ বিক্রি করেছি।

উপজেলা উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা কামরুজ্জামান বলেন, আমাদের এলাকায় যেসব আখ চাষ করা হয়- সবই ইশ্বরদী জাতের। ইশ্বরদী-৩১,৩২,৩৭,৩৮ ও ৪১,৪২ জাতের আখ চাষের উপযোগী। ইশ্বরদী -৪১ ও ৪২ জাতের আখ ভালো ফলন হয় এবং অন্যান্য জাতের তুলনায় বাজারে চাহিদা বেশী থাকে। দামও পাওয়া যায় ভালো।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা বকুল ইসলাম বলেন, গত বছরের তুলনায় চলতি মৌসুমে আখের চাষ বৃদ্ধি পেয়েছে। এবারে ১৩ হেক্টর জমিতে আখ চাষ করা হয়েছে। যা গত বছরের তুলনায় এক হেক্টর বেশি চাষ হয়েছে। 

তিনি আরো বলেন, এসব জাতের আখ চাষে ইশ্বরদী ইক্ষু গবেষণা কেন্দ্র দেখভাল করলেও আমরাও চাষিদের রোগবালাই দূরীকরণে পরামর্শ দিয়ে থাকি।