• শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৭ ১৪৩১

  • || ১৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

জলঢাকায় মৃত্যুর আগে কিশোরী মায়ের মুখটি দেখতে পেল না সেই শিশু

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৭ মার্চ ২০২৩  

 
নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টয়লেটে রেখে যাওয়া নবজাতকটি শ্বাসকষ্টজনিত রোগে মারা গেছে। এছাড়া সন্তান রেখে পালানোর দুদিন অতিবাহিত হলেও খোঁজ মেলেনি সেই কিশোরী মায়ের। সোমবার (২৭ মার্চ) দুপুর ২টার দিক জলঢাকার কেন্দ্রীয় কবরস্থানে শিশুটির দাফন সম্পন্ন হয়। এরআগে ভোর ৫টায় রংপুর মেডিকেল কলেজ (রমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শিশুটি মারা যায়।

জলঢাকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবু হাসান মো. রেজাওনুল কবীর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘শ্বাসকষ্টজনিত কারণে উন্নত চিকিৎসার জন্য শিশুটিকে রোববার (২৬ মার্চ) রমেক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছিল। চিকিৎসাধীন অবস্থায় শিশুটি আজ মারা গেছে। দুপুরে দাফন সম্পন্ন হয়েছে। তবে তার পরিচয় আমরা এখনো পাইনি। কিশোরী সেই মাকেও খুঁজে পাওয়া যায়নি।’

শনিবার (২৫ মার্চ) দুপুর ১২টার দিকে প্রসব ব্যথা নিয়ে এক কিশোরী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স আসে। পরে সে হাসপাতালের টয়লেটে প্রবেশ করে। টয়লেটে কিছুক্ষণ থাকার পর সেখান থেকে বের হয়ে কাউকে কিছু না জানিয়ে চলে যায় ওই কিশোরী। পরে টয়লেটে ওই নবজাতককে দেখতে পান হাসপাতালে ভর্তি থাকা অন্য রোগীরা।

টয়লেট থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। শিশুটি শ্বাসকষ্টে ভুগছিল। পরে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।