• শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৭ ১৪৩১

  • || ১৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

পুলিশের চেষ্টায় ৯ বছর পর পরিবার ফিরে পেলেন বৃদ্ধা

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১৯ নভেম্বর ২০২৩  

নীলফামারীর ডিমলায় রাস্তার পাশে পড়ে থাকা সুফিয়া খাতুন নামে এক বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে পরিবারের হাতে তুলে দিয়েছে পুলিশ। গত শুক্রবার (১৭ নভেম্বর) রাতে সুফিয়াকে তার ছেলে-মেয়ের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

সুফিয়া খাতুন দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার ডাকেশ্বরী গ্রামের বাসিন্দা মৃত সিরাজ উদ্দিনের স্ত্রী। পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, প্রায় ৯ বছর ধরে নিখোঁজ ছিলেন সুফিয়া খাতুন।

জানা গেছে, গত ১৬ নভেম্বর রাতে উপজেলার ঝুনাগাছ চাপানি ইউনিয়নের চাপানি বাজারে রাস্তার পাশে এক বৃদ্ধা অভুক্ত অবস্থায় পড়ে আছেন। বিষয়টি জানতে পেরে ডিমলা থানা পুলিশের উপপরিদর্শক(এসআই) আফছার আলী সেখান থেকে বৃদ্ধাকে উদ্ধার করেন।

আফছার আলী বলেন, বেশ কিছুদিন ধরে দেখছি চাপানি বাজারের একটি গলিতে ওই বৃদ্ধা মানবেতর জীবনযাপন করছিলেন। তিনি শারীরিক ও মানসিকভাবে দুর্বল থাকায় ঠিকানা ও পরিচয় ঠিকমতো বলতে পারছিলেন না। তার দেওয়া আংশিক তথ্যের ভিত্তিতে বিভিন্ন থানায় খোঁজ-খবর নিয়ে তার পরিচয় নিশ্চিত করি। পরে তাকে উদ্ধার করে পুলিশের তত্ত্বাবধানে শুক্রবার পরিবারের কাছে তুলে দেওয়া হয়।

স্থানীয়রা জানান, ওই বৃদ্ধা গত ৮ থেকে ৯ বছর চাপানি বাজারে অবস্থান করছিলেন। তিনি মানসিকভাবে কিছুটা ভারসাম্যহীন ছিলেন।

বৃদ্ধার ছেলে বাবুল হোসেন বলেন, গত ৯ বছর আগে নিজ বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়েছিলেন আমার মা। পরিবারের সদস্যরা অনেক খোঁজাখুঁজি করেও মাকে কোথাও পাইনি। পাঁচ বছর আগে বাবা মারা যান। একপর্যায়ে মাকে খুঁজে পাওয়ার আশা ছেড়েই দিয়েছিলাম। পুলিশের মানবিকতায় হারানো মাকে এত বছর পর ফিরে পেলাম আমরা।

ডিমলা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দেবাশীষ রায় বলেন, বীরগঞ্জ থানায় বৃদ্ধার ছবি পাঠিয়ে পরিচয় জানার চেষ্টা করা হয়। সেখানে থানার পুলিশের সহযোগিতায় তার সঠিক পরিচয় পাওয়া যায়। পরে শুক্রবার রাতে তাকে পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া দেওয়া হয়। ৯ বছর পর সুফিয়াকে ফিরে পেয়ে পরিবারের সদস্যরা আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েছিলেন। এ যেন এক মহামিলনের দৃশ্য।