• সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ১৩ ১৪৩০

  • || ১৫ শা'বান ১৪৪৫

সর্বশেষ:
জনগণের জন্য ন্যায়বিচার নিশ্চিতে নানা উদ্যোগ নিয়েছে সরকার- প্রধানমন্ত্রী সংস্কৃতির বিকাশে কাজ করছে সরকার: নৌপ্রতিমন্ত্রী শিক্ষা মানুষের সব সুযোগের দুয়ার উন্মোচন করে: গণপূর্তমন্ত্রী অসাধু ব্যবসায়ীদের কারসাজি রোধে সতর্ক থাকতে হবে: খাদ্যমন্ত্রী রোজার আগেই দে‌শে ঢুকবে ভারতের পেঁয়াজ: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

সৈয়দপুর বিজ্ঞান কলেজে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১৫৭ জন

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৬ নভেম্বর ২০২৩  

চলতি বছর নীলফামারীর সৈয়দপুর সরকারি বিজ্ঞান কলেজে এইচএসসিতে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১৫৭ জন। পাসের হার ৯৮.৬৭ শতাংশ। রোববার (২৬ নভেম্বর) দুপুর ১টার দিকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ।

তিনি জানান, এবার এই প্রতিষ্ঠান থেকে উচ্চমাধ্যমিক (এইচএসসি) পরীক্ষায় অংশ নিয়েছেন ২২৬ জন। পাস করেছেন ২২৩ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১৫৭ জন। সে হিসাবে পাসের হার শতকরা ৯৮.৬৭ শতাংশ।

অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ বলেন, আমাদের প্রতিটি শিক্ষার্থীই জিপিএ-৫ পাওয়ার যোগ্য ছিল বলে আমি মনে করি। তবে ২২৬ জনের মধ্যে জিপিএ ৫ পেয়েছেন ১৫৭ জন। বাকিদের ৬৫ জন এ গ্রেড ও একজন এ মাইনাস পেয়েছেন। আর অকৃতকার্য হয়েছেন তিনজন। প্রতিবারের মতো এবারও দেশের স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠানগুলোতে এখানকার শিক্ষার্থীরা ভর্তিযুদ্ধে সেরা ফল করবেন এমন প্রত্যাশা করছি।

প্রসঙ্গত, নীলফামারীর সৈয়দপুর সরকারি বিজ্ঞান কলেজের পূর্বের নাম ছিল সরকারি কারিগরি মহাবিদ্যালয় (টেকনিক্যাল কলেজ)। ২০১৯ সালে শিক্ষা মন্ত্রণালয় নাম পরিবর্তন করে সৈয়দপুর সরকারি বিজ্ঞান কলেজ রাখে। কলেজটিতে কেবল বিজ্ঞান বিষয়ে পড়ার সুযোগ রয়েছে। ১৯৬৪ সালে দেশের চারটি শিল্পাঞ্চলে টেকনিক্যাল স্কুল গড়ে ওঠে। দেশের সর্ববৃহৎ সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানার সুবাদে এখানেও গড়ে ওঠে টেকনিক্যাল স্কুল। উদ্দেশ্য ছিল এখান থেকে সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানার জন্য দক্ষ, কারিগরি জ্ঞানসম্পন্ন শিক্ষার্থী গড়ে তোলা। পরে ১৯৭৭ সালে প্রতিষ্ঠানটি কলেজে উন্নীত হয়।

কলেজটি থেকে প্রতি বছর উত্তীর্ণ বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বুয়েট, মেডিকেল কলেজ, প্রকৌশল ও পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পাচ্ছেন। দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের অধীনে শীর্ষ প্রতিষ্ঠান হিসেবে সৈয়দপুর সরকারি বিজ্ঞান কলেজের নাম রয়েছে।