ব্রেকিং:
দেশে নতুন করে লকডাউনের কোন চিন্তা-ভাবনা নেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী
  • সোমবার   ০৬ ডিসেম্বর ২০২১ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২২ ১৪২৮

  • || ২৯ রবিউস সানি ১৪৪৩

সর্বশেষ:
অস্ত্র প্রতিযোগিতার পরিবর্তে শান্তিপূর্ণ বিশ্ব গড়ুন- প্রধানমন্ত্রী যৌথভাবে মৈত্রী দিবস পালন করবে ঢাকা-দিল্লি রংপুরে এখন মঙ্গা নেই, উন্নয়ন দৃশ্যমান: বাণিজ্যমন্ত্রী হাবিপ্রবিতে ইউনিটভিত্তিক ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু ট্রাকচাপায় ওষুধ কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধি নিহত

‘নিজেদের ভালোটাও বোঝে না বিএনপি’     

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১১ নভেম্বর ২০২১  

দীর্ঘ এক যুগেরও বেশি সময় রাষ্ট্র ক্ষমতার বাইরে থাকা বিএনপি ক্রমশ দুর্বল হয়ে যাওয়ায় অসংখ্য নেতা সরে যাচ্ছেন। এর আগে, আন্দালিব রহমান পার্থের দল, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি, এনডিপি, বাংলাদেশ ন্যাপ, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম এবং খেলাফত মজলিসের মতো দলগুলো বিএনপির জোট থেকে সরে গেছে। এমতাবস্থায় বিএনপির প্রতি অনাস্থার কথা জানালেন দলটির একনিষ্ঠ বুদ্ধিজীবী ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

সম্প্রতি ডেইলি বাংলাদেশের প্রতিবেদকের সঙ্গে খোলামেলা আলোচনায় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, আমি আগে থেকেই বলে আসছি বিএনপির নেতৃত্বে পরিবর্তন আনা প্রয়োজন। কিন্তু তারা আমার কথা শুনছে না। এমন করে আর চলতে পারে না। যদি তারা জাইমা রহমানের হাতে দলের নেতৃত্ব তুলে না দেয়, তবে বিএনপি নামক দলের সমর্থন করার কোনো মানেই হয় না।

তিনি আরো বলেন, জিয়ার মৃত্যুর পর খালেদা জিয়া যেমন তার রূপ-যৌবন দিয়ে বিএনপিকে ঐক্যবদ্ধ করেছিলেন, তেমনি করে জাইমার মতো একজন রূপসী মেয়ে নেতৃত্বে আসলে আবার বিএনপি যৌবন ফিরে পাবে। বিএনপি নিজেদের ভালোটাও বোঝে না। এছাড়া বিএনপির সামনে আর পথ খোলা নেই। কিন্তু তারা সেটা বুঝতে পারছে না। নতুন নেতৃত্বের মাধ্যমে দলটিকে পুনরুদ্ধার করতে তারা নিজেরাই আগ্রহী নয়। তাই বিএনপির সঙ্গে থাকা আর সময় নষ্ট করা একই কথা।

এ বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপির স্থায়ী কমিটির এক সদস্য বলেন, জাফরুল্লাহ সাহেব খানিকটা অসুস্থ। আর এ কারণে তিনি দলে থাকতে চাইছেন না। এর বেশি কিছু নয়। তবে এ কথাও সত্যি- দলের বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে তিনি দুশ্চিন্তাগ্রস্ত। আর তার দুশ্চিন্তা অমূলক নয়। এ কথা স্বীকার করতেই হবে বিএনপিতে যোগ্য নেতৃত্বের অভাব রয়েছে।

বিএনপির রাজনীতি থেকে ডা. জাফরুল্লাহর সরে আসার বিষয়ে সাংবাদিক, রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও বুদ্ধিজীবীরা বলেন, অবশেষে জাফরুল্লাহ সাহেবের হুশ ফিরেছে। আসলেই বিএনপির কোনো নীতি আদর্শ নেই। আর এভাবে চলতে থাকলে যে কয়জন নেতা অবশিষ্ট আছেন তারাও দল থেকে পদত্যাগ করবেন। কারণ একজন পলাতক আসামির নেতৃত্বে দেশের একটি বড় রাজনৈতিক দল চলতে পারে না। সঠিক নেতৃত্বের অভাবেই আজ বিএনপির এই দশা।