• বুধবার   ১৯ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ৬ ১৪২৮

  • || ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

সর্বশেষ:
সেবা নিতে এসে কোনো মানুষ যেন হয়রানির শিকার না হন- ডিসি সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী দিনাজপুরে বইছে শৈত্যপ্রবাহ ‘শীতার্ত মানুষের কষ্ট লাঘবে পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার’ ডিমলায় পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ, যুবক আটক বিরলে ট্রাক্টরের ধাক্কায় পল্লি চিকিৎসক নিহত

খালেদার অসুস্থতার সুযোগে টাকা হাতিয়ে নিতে আবারো তৎপর তারেক       

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৬ ডিসেম্বর ২০২১  

লিভার সিরোসিসের চিকিৎসায় বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার ট্রান্সজুগুলার ইন্ট্রাহেপাটিক পোর্টোসিস্টেমিক সান্ট (টিআইপিএস) করানো প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন তার চিকিৎসকরা। আর এজন্য দেশে-বিদেশে মিলাদ দিতে চান তার বড় ছেলে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। 

আর এ মিলাদের নামে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নতুন চাঁদাবাজির পরিকল্পনা ফাঁস হয়েছে। সম্প্রতি দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদের হোয়াটস অ্যাপ থেকে ফাঁস হয় তারেক রহমানের নির্ধারিত তালিকার সেই বার্তা।

দলের একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র বলছে, মিলাদের নামে তারেক রহমানের প্রস্তুত করা চাঁদার তালিকা ফাঁস হওয়ায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন বিএনপির বিভিন্ন শ্রেণির নেতারা। কারণ দলের বিত্তশালী নেতাদের প্রাথমিক তালিকা প্রস্তুত করেছেন তারেক। ব্যবসা-বাণিজ্য ও দলে প্রাপ্ত পদ অনুযায়ী নেতাদের এ তালিকা করা হয়েছে। সব মিলিয়ে মিলাদ দিতে প্রায় কোটি টাকার চাঁদা নির্ধারণ করেছেন তারেক। 

বার্তা অনুযায়ী, মির্জা আব্বাস, আব্দুল আউয়াল মিন্টু, তাবিথ আউয়াল, ইশরাক হোসেন, আবুল খায়ের ভূঁইয়ার মতো ৫ জন বিত্তশালী নেতাকে মোটা অংকের টাকা সহায়তা ফান্ডে জমা দেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন তারেক। এছাড়া সেই হোয়াটস অ্যাপ নির্দেশনায় দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য, জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য, সংসদে যোগদানকারী বিএনপির এমপিদের বিভিন্ন হারে বাকি চাঁদার টাকা সহায়তা ফান্ডে জমা দিতে বলা হয়েছে।

এ বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দলের সিনিয়র দায়িত্বশীল একজন নেতা বলেন, কথায় কথায় চাঁদা দাবি করা বিএনপির নিত্যদিনের একটি স্বভাবে পরিণত হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, দীর্ঘদিন ধরে ক্ষমতার বাইরে থাকায় দলের আয় কমে গেছে। তাই যেকোনো অজুহাতেই ফান্ড গঠন করাটা নৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। এর আগেও গরিব-দুস্থ ও কারাবন্দি নেতাকর্মীদের সহায়তার কথা বলে অনেকবার চাঁদা নেয়া হয়েছিল। তবে সেগুলো আর বণ্টন করা হয়নি। সুতরাং দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে বিষয়টি এখন আতঙ্ক হয়ে দাঁড়িয়েছে।