• শনিবার   ২৫ জুন ২০২২ ||

  • আষাঢ় ১১ ১৪২৯

  • || ২৪ জ্বিলকদ ১৪৪৩

সর্বশেষ:
পদ্মাসেতুর উদ্বোধন বাংলাদেশের গৌরবোজ্জ্বল ঐতিহাসিক দিন- প্রধানমন্ত্রী কিছুক্ষণ পরই স্বপ্ন ছোঁয়ার মাহেন্দ্রক্ষণ ঢাক-ঢোল পিটিয়ে সভাস্থলে আসছেন মানুষ পদ্মাসেতু মাথা উঁচু করে দাঁড়ানোর সাহস এনে দিয়েছে: রাষ্ট্রপতি পদ্মাসেতু নির্মাণে সেনাবাহিনী পদ্মাসেতু উদ্বোধন উপলক্ষ্যে বাংলাদেশকে ভারতের অভিনন্দন

তীব্র হচ্ছে তারেক-জোবায়দা-শর্মিলার দ্বন্দ্ব

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২০ মে ২০২২  

খালেদা জিয়া দণ্ডিত হওয়ার পর থেকেই বিএনপিতে ক্ষমতা কুক্ষিগত করতে তারেক রহমান ও তার স্ত্রী ডা. জোবাইদা রহমানের দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে আসে। এবার সেই দ্বন্দ্বে যুক্ত হয়েছেন তারেক রহমানের ছোট ভাই প্রয়াত আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমান সিঁথি। তিনিও বিএনপির নেতৃত্বে আসতে চান। এ নিয়ে জিয়া পরিবারে শুরু হয়েছে তীব্র দ্বন্দ্ব।
সূত্র বলছে, ক্ষমতার লোভে এরই মধ্যেই জিয়া পরিবারে ফাটল দেখা দিয়েছে। আর নতুন করে ক্ষমতার দ্বন্দ্বে মাঠে নেমেছেন জিয়া পরিবারের দুই পুত্রবধূ।
 
বিএনপি সূত্র বলছে, খালেদা জিয়াসহ তার অনুসারীদের মাইনাস করে বিএনপির চূড়ান্ত নেতৃত্ব গ্রহণ করতে ফখরুলকে হাতে রেখে নিজ ছকেই হাঁটছেন তারেক রহমান। আর তারেকের এ স্বার্থবাদী চরিত্রকে গ্রহণ করছে না স্থায়ী কমিটিসহ স্বয়ং জিয়া পরিবার। এরই মধ্যে খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে প্রয়াত আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমান সিঁথিকে নিয়ে দলের সক্রিয় একটি পক্ষ মাঠে নেমেছে। 

জানা গেছে, এ পক্ষটি তারেক রহমানকে মাইনাস করে সিঁথিকে নেতৃত্বে আনার ‘স্বপ্ন’ দেখছে। অন্যদিকে, তারেক রহমানের স্ত্রী ডা. জোবাইদা রহমানও আলাদাভাবে সাংগঠনিক শক্তি অর্জন করেছেন দলে। যার ফলে বিএনপিতে ত্রিমুখী নেতৃত্বের দ্বন্দ্ব স্পষ্ট হয়ে উঠেছে।

বিএনপির একটি পক্ষের ভাষ্য, ১২ রমজানে চুপিসারে দুই সন্তানসহ দেশে এসেছিলেন শর্মিলা। দেশে থাকাকালীন মোট পাঁচবার খালেদা জিয়ার সঙ্গে গুলশানের বাসায় দীর্ঘ সময় কথা বলেছেন শর্মিলা। ১২ দিন দেশে অবস্থানের পর ঈদের আগেই লন্ডন ফিরে গিয়ে তারেক রহমানকে খালেদা জিয়ার বার্তা পৌঁছে দিয়েছেন। মুক্তির ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতেও বলেছেন। যার ফলে শর্মিলার প্রতি দলের একটি অংশের আলাদা সহানুভূতি সৃষ্টি হয়েছে।

শর্মিলার অনুসারী নেতাদের মতে, তারেক রহমান তার মায়ের জন্য কিছুই করেননি। খালেদা জিয়ার নির্দেশনা পালন করতে ব্যর্থ হয়েছেন। তারেকের উল্টোপথে হাঁটাকে ষড়যন্ত্র হিসেবে দেখছেন শর্মিলার অনুসারীরা।

এ বিষয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির এক নেতা বলেন, খালেদা জিয়ার পর তারেক রহমানকে নেতৃত্বে আনার বড় একটি দাবি। সেই আলোকে তারেক রহমান এখন থেকে তার কর্মপরিচালনা করছেন। যদি কোনো কারণে তিনি সিনিয়র নেতাদের বাধার সম্মুখীন হন, তখন চেয়ারপার্সন করতে তারেক রহমানের স্ত্রী ডা. জোবাইদা রহমানের নাম প্রস্তাব করা হবে। কিন্তু সম্প্রতি শর্মিলা রহমান সিঁথি রাজনীতিতে পা বাড়ানোয় নতুন বিএনপিতে নতুন পরিবেশ তৈরি হয়েছে। একটি পক্ষ শর্মিলা রহমান সিঁথিকে বিএনপির চেয়ারপার্সন করতে চান। কারণ, খালেদা জিয়ার কাছ থেকে পদটি চলে গেলে তারেক বা জোবায়দা সেটি কুক্ষাগত করে ফেলবেন। তখন দলীয় নেতারা একচেটিয়া নেতৃত্বে পড়ে যাবেন।