• বৃহস্পতিবার   ০১ ডিসেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৬ ১৪২৯

  • || ০৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

সর্বশেষ:
ক্ষমতায়ন ছাড়া সমাজে নারীর অবস্থান উন্নত হবে না: প্রধানমন্ত্রী অপপ্রচারকারীদের কনস্যুলার সেবা দেবে না কানাডার বাংলাদেশ মিশন ‘দেশের ফুটবল দলকে বিশ্বকাপের উপযোগী করতে কাজ চলছে’ ট্রেনের ধাক্কায় ইউএনও অফিসের নৈশপ্রহরীর মৃত্যু ‘পলিথিন প্রস্তুতকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে’

বিএনপি রাজনৈতিক ভ্যাকুয়াম সৃষ্টি করতে চায়: আমু

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২  

বিএনপি রাজনৈতিক ভ্যাকুয়াম সৃষ্টি করতে চায়: আমু                   
আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমু বলেছেন, বিএনপি সংবিধান সংশোধন করতে চায়। তারা পাকিস্তানের প্রেতাত্মা। তাদের পাকিস্তানের প্রতি যে প্রেম, সেটা জিয়ার আমল থেকেই তারা ধারণ করে এসেছে। বিএনপি নেতাকর্মীরা সম্প্রতি যে বক্তব্য দিচ্ছেন তারই প্রমাণ এটি। বিএনপি রাজনৈতিক ভ্যাকুয়াম সৃষ্টি করতে চায়। তাই দেশবাসীকে সতর্ক থাকতে হবে।

সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী মিলনায়তনে ময়েজউদ্দিন স্মৃতি সংসদ আয়োজিত ‘গণতন্ত্র ও সন্ত্রাসমুক্ত সমাজ গঠনে শান্তি এবং ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় জনপ্রতিনিধিদের ভূমিকা’ শীর্ষক এক আলোচনা ও স্মরণসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

এরশাদ আমলে নিহত আওয়ামী লীগ নেতা মো. ময়েজউদ্দিনের স্মৃতিচারণ করে আমু বলেন, তিনি সিএসপি পরীক্ষা দিয়ে রাজনীতিতে যোগ দিয়েছিলেন। বঙ্গবন্ধুর নামে আগরতলা মামলা হওয়ার পর সেই সময়ে আওয়ামী লীগের এত বিত্ত ছিল না। উকিলরা টাকা দেওয়া ছাড়া মামলা চালাবেন না। তিনি উকিল নিয়ে মামলা চালিয়েছিলেন। এ লক্ষ্যে তিনি অর্থ কমিটি করেন। তিনি ঐ কমিটির আহ্বায়ক হন। পরে তিনি সংসদ সদস্য হন এবং মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয় অংশ নিয়েছিলেন। 

তিনি আরো বলেন, আজকে আমরা তার মৃত্যু দিবস পালন করছি। এ সময়ে এসে আমরা অবাক হই। ময়েজউদ্দিনের হত্যাকারী আজম খানকে এরশাদ পুত্রতুল্য স্নেহ দিয়েছিলেন। তারা আজকে বড় বড় কথা বলে। ৮৬ সালে এরশাদ আমলে ১২ দিন নির্বাচনের ফল স্থগিত রাখা হয়। তারা আজকে গণতন্ত্র শেখাতে চায়। 

শহিদ ময়েজউদ্দিন স্মৃতি সংসদের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমানের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগ উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য মোজাফফর হোসেন পল্টু, প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, ডেইলি অবজারভার সম্পাদক ইকবাল সোবহান চৌধুরী।