• সোমবার ২০ মে ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৬ ১৪৩১

  • || ১১ জ্বিলকদ ১৪৪৫

আগস্ট এলে বিএনপি নেতাদের চোখ-মুখ শুকিয়ে যায়: ওবায়দুল কাদের

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১৭ আগস্ট ২০২৩  

 
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আগস্ট মাস এলে বিএনপি নেতাদের চোখ মুখ শুকিয়ে যায়। তারা সত্যের মুখোমুখি হতে ভয় পান। বুধবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলনকেন্দ্রে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৮তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় এ কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ইতিহাসের অনেক প্রশ্নের জবাব বারবার চেয়েও বিএনপির কাছ থেকে পাওয়া যায়নি। জিজ্ঞেস করেছিলাম- ১৫ আগস্টের খুনিদের নিরাপদে বিদেশে পাঠাল কে? তাদের বিদেশে চাকরি দিয়ে পুরস্কৃত করল কে? খন্দকার মোস্তাকের সংবিধানের পঞ্চম সংশোধনী বাংলাদেশের সংবিধানের অন্তর্ভুক্ত করেছিল কে? এসব প্রশ্নের উত্তর বিএনপির কোনো নেতা দেননি। এগুলো করেছিলেন বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান। তিনি এসব করেছিলেন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বিচার বন্ধ করতে।

তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের দুঃসাহস দিয়েছেন জিয়াউর রহমান। জিয়াউর রহমানের দুঃশাসন না হলে এ ঘটনা ঘটত না।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, করোনার সময় খালেদা জিয়ার আরেকটা জন্মদিন দেখলাম। ১৫ আগস্ট, যা আগে ছিল না। বিএনপিকে যখন জিজ্ঞেস করেছিলাম- একজনের কয়টা জন্মদিন থাকে? তখন বিএনপি নেতারা বলেন- আমাদের বক্তব্য শিষ্টাচার বহির্ভূত। ইতিহাস নিয়ে বিএনপির এসব মিথ্যাচার জাতি ক্ষমা করবে না।

সেতুমন্ত্রী বলেন, ১৫ আগস্টের ঘটনার সব সত্য এখনো বের হয়ে আসেনি। অনেক তথ্য অজানা রয়ে গেছে। সেসব সত্য প্রকাশ হবেই। প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর হত্যার বিচার করেছেন, সেখানে অনেক সত্য বেরিয়ে এসেছে। আগামীতেও অনেক সত্য প্রকাশ্যে আসবে।

তিনি বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট রাতে বঙ্গবন্ধু কয়েকজনকে ফোন করেছিলেন। তাদের মধ্যে কয়জন বঙ্গবন্ধুর ডাকে সাড়া দিয়েছিলেন? শুধুমাত্র কর্নেল জামিল ৩২ নম্বরে ছুটে এসেছিলেন, তাকেও পথেই হত্যা করা হয়। আর কোনো নেতা আসেননি। এসব নেতা বিবেকের কাছে অপরাধী। বঙ্গবন্ধুর জন্য তারা বড় পদে এসেছেন, নেতা হয়েছে। কিন্তু কর্নেল জামিল যে সাহস, আনুগত্য দেখিয়েছেন তা কোনো পলিটিশিয়ান দেখাতে পারেননি। এটাই সত্য।