বৃহস্পতিবার   ১৭ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ২ ১৪২৬   ১৭ সফর ১৪৪১

বাবার কীর্তি: ৩ ছেলেকে বাঁচিয়ে নিজেই তলিয়ে গেলেন নদীতে

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত : ০৮:০২ পিএম, ৫ অক্টোবর ২০১৯ শনিবার

কথায় বলে, ছেলে যতই বড় হোক, বাবা বাবাই থাকে। নানা সময়ে বারবার কথাটা প্রমাণ হয়ে এসেছে। ছেলের জন্যে বাবার অবদানের নতুন গল্পগাঁথা লিখে গেলেন ভারতের ইটাহারের খরস্রোতা এলাকার বাসিন্দা ভুপাল শেঠ। মালদহের মহানন্দা নদীতে ভয়ংকর নৌকাডুবিতে তিন ছেলেকে বাঁচিয়ে নিজেই তলিয়ে গেলেন নদীর বুকে। এখনো খোঁজ মেলেনি তাঁর।

জানা গিয়েছে, মাঝ নদীতে আচমকা নৌকা উল্টে অন্য যাত্রীদের সঙ্গে তিন ছেলেসহ বাবা ভুপাল শেঠও নদীতে তলিয়ে যান। কিন্তু ভুপাল শেঠ সাঁতরে পাড়ে উঠে দেখেন ছেলেরা পানিতে হাবুডুবু খাচ্ছে। মুহূর্তে ভরা মহানন্দায় ঝাঁপ দেন তিনি। একে একে তিন ছেলেকে উদ্ধার করলেও নিজেই নিখোঁজ হয়ে যান। প্রায় ২৪ ঘণ্টা তল্লাশি চালিয়েও তাঁর কোনো খোঁজ মেলেনি।

মহানন্দাপাড়ে ইটাহারের গ্রামে এখন করুণ সুর। কান্নার রোল গোটা গ্রামে। উৎসবের আমেজ আর নেই। মালদহের মহানন্দা নদীতে ভয়াবহ নৌকাডুবির ঘটনায় মৃতদের জন্যে ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করেছে রাজ্য সরকার। 

জগন্নাথপুর ঘাট থেকে বিহারের মুকুন্দপুরে নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে যাচ্ছিলেন ওই এলাকার বাসিন্দারা। তখনই মহানন্দা নদীতে এই ভয়ঙ্কর দুর্ঘটনা ঘটে।

উদ্ধারকারীরা জানিয়েছেন, একটি নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করার জন্য দুই পারে বহু মানুষ জমা হয়েছিলেন। সন্ধ্যা নাগাদ প্রায় ৭০ জন যাত্রী নিয়ে ওই নৌকাটির বিহারের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। বৃষ্টির কারণে বর্তমানে মহানন্দা নদীর অবস্থা ভয়ংকর। মাঝ নদীতে গিয়ে নৌকাটি হঠাৎ ডুবে যায়।