ব্রেকিং:
দেশে নতুন করে লকডাউনের কোন চিন্তা-ভাবনা নেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী
  • সোমবার   ০৬ ডিসেম্বর ২০২১ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২২ ১৪২৮

  • || ২৯ রবিউস সানি ১৪৪৩

সর্বশেষ:
অস্ত্র প্রতিযোগিতার পরিবর্তে শান্তিপূর্ণ বিশ্ব গড়ুন- প্রধানমন্ত্রী যৌথভাবে মৈত্রী দিবস পালন করবে ঢাকা-দিল্লি রংপুরে এখন মঙ্গা নেই, উন্নয়ন দৃশ্যমান: বাণিজ্যমন্ত্রী হাবিপ্রবিতে ইউনিটভিত্তিক ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু ট্রাকচাপায় ওষুধ কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধি নিহত

শিক্ষা ব্যবস্থা ডিজিটাল রূপান্তরের বিকল্প নেই: টেলিযোগাযোগমন্ত্রী

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১৯ নভেম্বর ২০২১  

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, বাংলাদেশের জন্য সম্পূর্ণ ডিজিটাল শিক্ষা নিশ্চিত করার বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। গোটা শিক্ষা ব্যবস্থা ডিজিটাল রূপান্তর করার বিকল্প কিছু নেই।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে অনলাইনে এটুআই’র ব্যবস্থাপনায় ‘ইনক্লুসিভ একসেস ফর ব্লেন্ডেড অ্যাডুকেশন ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক প্যানেল আলোচনা অনুষ্ঠানে বক্তৃতাকালে এসব কথা বলেন তিনি। শিক্ষা মন্ত্রণালয়, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ, আইসিটি বিভাগ, মেটা (ফেসবুক) এবং আইটিইউ এর আয়োজন করে।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, শিক্ষা ব্যবস্থা ডিজিটাল রূপান্তরের ক্ষেত্রে প্রধান তিনটি চ্যালেঞ্জ হচ্ছে- ডিজিটাল কনটেন্ট তৈরি, ডিজিটাল সংযুক্তি এবং ডিজিটাল ডিভাইসের সহজলভ্যতা। আমাদের মতো দেশের জন্য সবগুলো চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে এক ধাপে শিক্ষার ডিজিটাল রূপান্তর করাটা কঠিন বলে আমরা এখন ব্লেন্ডেড শিক্ষার পথ ধরে হাঁটছি।

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, মেটা’র গ্লোবাল হেড অব কানেক্টিভিটি অ্যান্ড একসেস পলিসি মনিকা দেশাই ও আইটিইউ’র স্পেশাল ইনিশিয়েটিভ গিগা চিফ এলেক্স অং প্যানেলিস্ট হিসেবে অনলাইনে আলোচনায় অংশ নেন।

আইসিটি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।

অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী দৃঢ়তার সঙ্গে বলেন, বর্তমান সরকার শিক্ষা ব্যবস্থাকে ডিজিটাল রূপান্তরের জন্য প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। তিনি মেটা ও আইটিইউকে এ বিষয়ে সহায়তা করার আহ্বান জানান।

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশে ডিজিটাল সংযুক্তির বিস্তার ঘটেছে। তিনি ফেসবুক কর্তৃপক্ষকে কেবল টেক্সট ব্রাউজিং ফ্রি না করে ইন্টার-এ্যাকটিভ মাল্টিমিডিয়া কনটেন্টও ফ্রি করার আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে প্যানেলিস্টরা স্ব-স্ব প্রতিষ্ঠান ও সংস্থার বিষয়-ভিত্তিক অগ্রগতি ও নীতিগত বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করেন।