• শনিবার   ১৩ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ২৯ ১৪২৯

  • || ১৪ মুহররম ১৪৪৪

সর্বশেষ:
পঞ্চগড়ে পাঁচ হাজার গাছ কেটে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা তিনমাস পর হারানো মোবাইল উদ্ধার করে ফিরিয়ে দিল পুলিশ এসডিজি অর্জনে সংসদ সদস্যদের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ: স্পিকার বৈধ পথে রেমিট্যান্স পাঠাতে সৌদি প্রবাসীদের প্রতি আহ্বান পদ্মা সেতু চালুর পর দর্শনার্থীতে মুখর বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধ

স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে কাজ করছে সরকার: জুনায়েদ আহমেদ পলক

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৩১ জুলাই ২০২২  

স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে কাজ করছে সরকার: জুনায়েদ আহমেদ পলক            
তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক বলেছেন, ডিজিটাল বাংলাদেশের পর স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে কাজ করছে সরকার। আগামী ২০৪১ সালের মধ্যে দেশকে ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে। এছাড়া ৫৬টি মন্ত্রণালয়ের সমন্বয়ে নতুন একটি অনলাইন পোর্টাল খুলতে যাচ্ছে আইসিটি বিভাগ। এটির নাম রাখা হচ্ছে ‘জনতার সরকার পোর্টাল’।

গতকাল শনিবার রাতে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিষয়ক বেস্ট রিপোর্টিং অ্যাওয়ার্ড প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

জুনায়েদ আহমেদ পলক বলেন, ১৩ বছরে ২ হাজারের বেশি সেবাকে ডিজিটালাইজেশন করা হয়েছে। শুধুমাত্র মাইগভ অ্যাপ থেকেই ৬০০ এর বেশি সেবা দেওয়া হচ্ছে। স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণের অংশ হিসেবে ২০২৫ সালের মধ্যে প্রায় ২ লাখ বিদ্যালয়, ভূমি অফিস, হেলথ কমপ্লেক্সকে ফাইবার অপটিকের আওতায় আনা হবে। শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাবের মাধ্যমে প্রাথমিক পর্যায়েই শিক্ষার্থীরা প্রোগ্রামিংয়ের কাজ করছে। আর সঙ্গে আছে ফ্রিল্যান্সিং। ১৩ বছরের মধ্যে ১৩ কোটি ইন্টারনেট ব্যবহারকারী তৈরি হয়েছে। তরুণরা এখন ঢাকামুখী না হয়ে উপজেলা বা গ্রামে বসেই ডলার এবং ইউরো আয় করছে।

তিনি বলেন, সংবাদ হচ্ছে সমাজের দর্পন। আগামীতে শেখ হাসিনার সরকারের সিদ্ধান্ত গ্রহণের জায়গায় জনগণের মতামত যাতে আরো প্রতিফলিত হয়, সে কারণে ৫৬টি মন্ত্রণালয়কে সম্পৃক্ত করে আগামী দুই তিন মাসের মধ্যে অত্যন্ত আধুনিক পোর্টাল চালু করতে যাচ্ছি। যেটি হচ্ছে 'জনতার সরকার পোর্টাল'। 

জুনায়েদ আহমেদ পলক বলেন, প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে আমরা একটি ডিজিটাল লিডারশিপ তৈরির অনুমোদন পেয়েছি। সেখানে ধারাবাহিকভাবে সাংবাদিকরা দক্ষতা অর্জন করবেন যাতে বিশ্বে আমাদের সাংবাদিকরা নেতৃত্ব দিতে পারেন। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের প্রযুক্তি ব্যবহার করে তারা যাতে বিশ্বমানের সাংবাদিকতা করতে পারেন। সে কারণে আমরা ডিজিটাল লিডারশিপের মাধ্যমে ট্রেনিং, ওরিয়েন্টেশন ও এনহেঁচমেন্ট করতে পারবো।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন- প্রধানমন্ত্রীর উপ প্রেস সচিব কে এম শাখাওয়াত মুন, উপ প্রেস সচিব হাসান জাহিদ তুষার, বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিকর্ণ কুমার ঘোষ, ডিবিসির সম্পাদক জায়েদুল হাসান পিন্টু, ঢাকা ট্রিবিউনের নির্বাহী সম্পাদক রিয়াজ আহমেদ, এটিএন নিউজের বার্তা প্রধান প্রভাষ আমিন প্রমুখ।