• বৃহস্পতিবার   ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ১৯ ১৪২৯

  • || ০৯ রজব ১৪৪৪

সর্বশেষ:
ফিলিস্তিনিদের পাশে দাঁড়াতে মুসলিমদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান সংখ্যালঘু বলতে কোনো শব্দ নেই, আমরা সবাই বাঙালি: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী আইএমএফের ঋণই প্রমাণ করে দেশের অর্থনীতির ভিত্তি মজবুত: অর্থমন্ত্রী করোনা মহামারির মধ্যেও বাংলাদেশের অর্থনীতি ৩.৮% প্রসারিত হয়েছে শিক্ষা নিয়ে ব্যবসা করার মানসিকতা পরিহার করার আহ্বান রাষ্ট্রপতির

জয় দিয়েই যাত্রা শুরু করলো ইংল্যান্ড

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৩ অক্টোবর ২০২২  

শুরু হয়েছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ সুপার টুয়েলভের জমজমাট লড়াই। দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে আফগানিস্তানকে হারিয়ে নিজেদের প্রথম জয় তুলে নিলো ইংল্যান্ড। ১১ বল হাতে রেখেই ৫ উইকেটে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় ইংলিশরা। 

ম্যাচে ৩.৪ ওভারে বল করে অনন্য এক রেকর্ড গড়েন ইংলিশ বোলার স্যাম কোরান। প্রথম বোলার হিসেবে ইংলিশদের টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ৫ উইকেট শিকারী তালিকায় নাম লিখিয়েছেন ২৪ বছর বয়সী এই পেসার। 

পার্থ ক্রিকেট গ্রাউন্ডে এই ম্যাচে টস জিতে ফিল্ডিং নেয় ইংল্যান্ড অধিনায়ক জশ বাটলার। তাদের আমন্ত্রনে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ১৯.৪ ওভার শেষে সব কটি উইকেট হারিয়ে আফগানিস্তান করে ১১২ রান। ফলে ইংল্যান্ডের সামনে জয়ের জন্য লক্ষ্য দাঁড়ায় ১১৩ রানের।

আফগানদের বিপক্ষে ১১৩ রান তুলতে গিয়ে ইংলিশ কোনো ব্যাটারই বড় ইনিংস খেলতে পারেননি। সর্বোচ্চ ২৯ রান করেছেন লিয়াম লিভিংস্টোন। ২১ বলে ৩ বাউন্ডারিতে ২৯ রানে অপরাজিত থেকে যান তিনি। শেষদিকে ১০ বলে ৮ রান করে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন মইন আলি।

দুই ওপেনার জস বাটলার এবং অ্যালেক্স হেলস সূচনাটা মোটামুটি ভালো করেলেও ৫ ওভারে ৩৬ রানের জুটি গড়েন তারা। এ সময় ফজল হক ফারুকির বলে ১৮ রান করে বিদায় নেন ইংলিশ অধিনায়ক বাটলার। অ্যালেক্স হেলস ২০ বলে করেন ১৯ রান। এছাড়া ডেভিড মালানের ব্যাট থেকে আসে ১৮ রান।

আফগান বোলারদের মধ্যে ফজল হক ফারুকি, মুজিব-উর রহমান, রশিদ খান, ফরিদ আহমেদ এবং মোহাম্মদ নবি নেন ১ টি করে উইকেট।

এর আগে নিজেদের ইনিংসে শুরুটা ভালো হলেও মাঝ পথে এসে যেন খেই হারায় আফগানরা। ৯০ রান তুলতেই আফগানরা হারায় জাজাই, গুরবাজ, জাদরান, নবী ও নাজিবুল্লার উইকেট।

৮০ রান করতে না করতে হারাতে হয় তাদের ৫ উইকেট, ওভার খেলে ১৫। এ অবস্থায় হাতে উইকেট রেখেও যেন হাত খুলে খেলতে পারেননি নবীরা। যখনই হাত খুলছেন তখনই ইংল্যান্ডের ফিল্ডারদেরে হাতে ধরা পড়ছেন।

এখন পর্যন্ত এই ফরম্যাটে দুই দল মুখোমুখি হয়েছে মোট দুই বার। তাতে ইংল্যান্ডের দুই জয়ের বিপরীতে আফগানদের জয়ের হার শুন্য। আজ এই ব্যবধান বদলে নিতে চাইবেন রশিদ-মুজিবরা।

ম্যাচে রীতিমত বিধ্বংসী বোলিং করলেন তরুণ পেসার স্যাম কুরান। ২২ বলের বোলিং করে মাত্র ১০ রান দিয়ে একাই নিয়েছেন ৫ উইকেট। তার এই বিধ্বংসী বোলিংয়েই মূলত শেষ হয়ে যায় আফগানদের ইনিংস। শুধু কুরানই নয়, বেন স্টোকস ৪ ওভারে দিলেন ১৯ রান। উইকেট নিয়েছেন ২টি।

মার্ক উড ৪ ওভারে দিয়েছেন ২৩ রান। উইকেট নিয়েছেন ২টি। ৪ ওভারে ২৪ রান দিয়ে ১ উইকেট নেন ক্রিস ওকস। আদিল রশিদ তুলনামূলক খরুচে ছিলেন। ৪ ওভারে তিনি দিয়েছেন ৩২ রান।

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই বিধ্বংসী ব্যাটার হযরতউল্লাহ জাজাই ১৭ বলে ৭ রানে বিদায় নেন। আফগানদের আরেক মারকুটে ব্যাটার রহমানুল্লাহ গুরবাজ ৯ বলে ১০ রান করে বিদায় নেন। ওয়ানডাউনে ব্যাট করতে নামা ইব্রাহিম জাদরান এবং উসমান ঘানি চেষ্টা করে ইংলিশ বোলারদের বিপক্ষে রুখে দাঁড়াতে। ইব্রাহিম জাদরান ৩২ বলে ৩২ রান এবং উসমান ঘানি ৩০ বলে ৩০ রান করে আউট হন। এরপরের ব্যাটাররা ছিলেন শুধু আসা-যাওয়ার মিছিলে।

নাজিবুল্লাহ জাদরান ১৩, মোহাম্মদ নবি ৩, আজমতউল্লাহ ওমরজাই ৮, রশিদ খান ০, মুজিব-উর রহমান ০ এবং ফজল হক ফারুকি ০ রানে ব্যর্থতার পরিচয় দেন। এরফলে ১১২ রানেই অলআউট হয়ে যায় আফগানিস্তান।