• বুধবার   ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ১৮ ১৪২৯

  • || ০৮ রজব ১৪৪৪

একটা জয় বাঁচিয়ে দিলো ৭০০ মানুষের প্রাণ

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৯ নভেম্বর ২০২২  

ফুটবল শুধু একটা খেলা নয়, এরচেয়েও বেশি কিছু - এমন একটা কথা বেশ প্রচলিত আছে। অবশ্য এই কথাকে ফেলে দেবার কোনো কারণ নেই। ফুটবল বিশ্বকাপকে ঘিরেই পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশি উন্মাদনার সৃষ্টি হয়। এবার সৃষ্টি হলো মানবতার অনন্য এক দৃষ্টান্ত। একটা জয়ের বিনিময়ে নতুন জীবন পেলো ৭০০ জন মানুষ!

বিশ্বকাপে ওয়েলসের বিপক্ষে ২-০ গোলের জয় পেয়েছে এশিয়ার দেশ ইরান। এমন জয়ের পর প্রায় ৭০০ কয়েদিকে মুক্তি দিয়েছে দেশটির সরকার। ২৫ নভেম্বরের ম্যাচে যোগ করা সময়ের ২ গোলে ওয়েলসকে হারায় ইরান। বিশ্বকাপে সর্বশেষ ১২ ম্যাচে এটি ছিল তাদের দ্বিতীয় জয়। এই জয় উদযাপনে মেতেছে ইরানিরা।

বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, ইরানের বিচার বিভাগ ‘মিজান’-এর ওয়েবসাইটে ওয়েলসের বিপক্ষে জয়ের পর ৭০৯ কয়েদির মুক্তির খবর জানানো হয়েছে। এসব কয়েদির মধ্যে তারাও আছে, যারা সাম্প্রতিক ঘটনায় গ্রেপ্তার হয়েছেন। এমনটাই জানিয়েছে ‘মিজান অনলাইন’। তবে এর বেশি কিছু জানানো হয়নি।

গেল প্রায় দুই মাস ধরে ইরানে চলছে সরকারবিরোধী আন্দোলন। গত সেপ্টেম্বরে হিজাব না পরার কারণে ইরানের নীতি পুলিশের হাতে আটক ও পরে নির্যাতনে মাসা আমিনি নামের এক তরুণী নিহত হওয়ার পর থেকে ছড়িয়ে পড়েছে আন্দোলন। সেটি এরপর রূপ নিয়েছে সহিংসতায়, যেখানে শিশুসহ শত শত মানুষ নিহত হওয়ার খবর আসে।

এই আন্দোলনে গ্রেফতার হয়েছিলেন ইরানের প্রখ্যাত অভিনেতা হেঙ্গামেহ গাজিয়ানি, সাবেক ফুটবলার ভোরিয়া গফুরির মতো তারকারা। তাদেরকেও ছেড়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে ইরানি সংবাদমাধ্যমগুলো। আন্দোলন শুরু হওয়ার পর প্রায় দুই হাজার জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত প্রায় ১৪ হাজার লোককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

বিশ্বকাপেও প্রভাব ফেলেছে ইরানের আন্দোলন। ইরানি সমর্থকরা নানাভাবে তাদের প্রতিবাদ অব্যাহত রেখেছেন। মাসা আমিনির নাম সম্বলিত জার্সি প্রদর্শন সহ নারী মুক্তির স্লোগান নিয়ে তারা জাহির হয়েছে গ্যালারীতে। গ্যালারিতে মাসা আমিনির স্মরণে এখনকার আন্দোলনের স্লোগান ‘নারী, জীবন, স্বাধীনতা’ লেখা প্ল্যাকার্ড দেখা গেছে। 

ইরানি খেলোয়াড়রা অবশ্য দেশের জন্য খেলছেন। ওয়েলসের বিপক্ষে জয়ের পর ইরান ডিফেন্ডার মোর্তেজা পুরালিগাঞ্জি বলেছিলেন, ‘আমরা জনগণের জন্য লড়াই করি, তাদের খুশি করার চেষ্টা করেছি।’আজ যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে নিজেদের শেষ ম্যাচ খেলবে ইরান। তাদের সামনে শেষ ষোলতে খেলার সুযোগ। বিশ্বকাপে কখনোই শেষ ষোলোতে খেলেনি দলটি।