• শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ৩ ১৪৩১

  • || ১১ মুহররম ১৪৪৬

সর্বশেষ:
সর্বোচ্চ আদালতের রায়ই আইন হিসেবে গণ্য হবে: জনপ্রশাসনমন্ত্রী। ২৫ জুলাই পর্যন্ত এইচএসসির সব পরীক্ষা স্থগিত।

বঙ্গবন্ধুর প্রতিটি উদ্যোগ সফলভাবে বাস্তবায়ন করছে সরকার

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২১ আগস্ট ২০২৩  

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেয়া প্রতিটি উদ্যোগ বর্তমান সরকার সফলভাবে বাস্তবায়ন করতে পেরেছে। এজন্য আমি দেশবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞ। আগামীতে প্রাকৃতিক দুর্যোগ এবং অগ্নি সন্ত্রাসের মতো মানবসৃষ্ট দুর্যোগ মোকাবিলা করে আমরা উন্নয়নের পথে দেশের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে চাই।

রোববার গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নবনির্মিত ‘বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)’ ভবন ও ‘তথ্য কমিশন ভবন’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি। একই সঙ্গে ‘বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএফডিসি) কমপ্লেক্স’র ভিত্তিপ্রস্তরও স্থাপন করেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জনগণ নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আমাদের বারবার সেবা করার সুযোগ দিয়েছে বলেই এ কাজগুলো করতে পেরেছি। বাংলাদেশে ২০০৯ সাল থেকে ২০২৩ সাল পর্যন্ত ধারাবাহিক গণতান্ত্রিক পদ্ধতির সরকার চলছে বলেই স্থিতিশীলতা বজায় রয়েছে। যদিও এর মাঝে আমাদের প্রাকৃতিক দুর্যোগ, মানবসৃষ্ট দুর্যোগ, অগ্নিসন্ত্রাস- এমন অনেক কিছুই মোকাবিলা করতে হয়েছে। এরপরও বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে এবং এই অগ্রযাত্রা যেন অব্যাহত থাকে সেটাই আমাদের লক্ষ্য।

তিনি আরো বলেন, আজকে ডিজিটাল বাংলাদেশ করেছি এবং ২০৪১ সালের মধ্যে এই বাংলাদেশকে আমরা ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। সেখানে আমাদের স্মার্ট জনগোষ্ঠী হবে, স্মার্ট ইকোনমি হবে, স্মার্ট সোসাইটি হবে, স্মার্ট গভর্নমেন্ট তথা প্রতিটি ক্ষেত্র স্মার্ট হবে। সেই লক্ষ্য সামনে রেখে সরকার সবক্ষেত্রেই আধুনিক প্রযুক্তি জ্ঞানসম্পন্ন জনগোষ্ঠী, সমাজ এবং দেশ গড়ে তোলার পদক্ষেপ নিয়েছে। ইনশাল্লাহ আমরা এটা সফলভাবে করতে পারবো। বাংলাদেশে ক্ষুধা-দারিদ্র্য থাকবে না, কোনো মানুষ কষ্ট পাবে না, প্রত্যেক ভূমিহীন মানুষ ঘর পাবে, প্রতিটি মানুষের জীবনমান উন্নত হবে।

সর্বজনীন পেনশন স্কিমের প্রসঙ্গ টেনে শেখ হাসিনা বলেন, আগে শুধু সরকারি কর্মকর্তারাই অবসর ভাতা পেত, সেটাকে আমরা সর্বজনীন করে দিয়েছি। কেননা যখন অবসরে যাওয়া বেসরকারি কর্মজীবীদের কাজ করার সুযোগ থাকবে না তখন তাদের জীবনটা যেন অর্থবহ থাকে এবং প্রত্যেক মানুষের জীবন যেন নিরাপদ হয়।

সরকার প্রধান বলেন, আমরা যখনই কোনো উন্নয়নের উদ্যোগ নিই, তখনই দেখতে পাই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ভিত্তি প্রদান করেছিলেন। বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া ভিত্তির ওপর নির্ভর করেই আজকের বাংলাদেশ উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। জাতির পিতার পদচিহ্ন অনুসরণ করে দেশ ও জনগণের উন্নয়নে কাজ করতে পেরে অত্যন্ত আনন্দিত বোধ করছি।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তফা জব্বার, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব মোহাম্মদ সালাহ উদ্দিন প্রমুখ।