– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –
  • রোববার ০১ অক্টোবর ২০২৩ ||

  • আশ্বিন ১৬ ১৪৩০

  • || ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৫

সর্বশেষ:
বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দল নিয়ে আশাবাদী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গঙ্গাচড়ায় জাতীয় কন্যাশিশু দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও চেক বিতরণ নিরাপদ সড়ক চাই পীরগঞ্জ উপজেলা কমিটি গঠনের লক্ষ্যে মতবিনিময় সভা নীলফামারীতে মসজিদের ভেতরে সন্ত্রাসী হামলায় দুই মুসল্লি আহত, আটক ২ রংপুরে ৫০ লাখ ছাগল-ভেড়া পাবে পিপিআর টিকা

বঙ্গবন্ধু মানুষের মুক্তির সংগ্রামে নিজেকে উৎসর্গ করেছেন: তাজুল 

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৩ আগস্ট ২০২৩  

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তার সারাটি জীবন মানুষের মুক্তির সংগ্রামে উৎসর্গ করেছেন। বঙ্গবন্ধু অকৃত্রিমভাবে বাংলার মানুষকে ভালবেসেছিলেন বলেই বাংলাদেশ একটি স্বাধীন ও সার্বভৌম ভূখণ্ড পেয়েছে। 

মঙ্গলবার ঢাকার জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতর অডিটোরিয়ামে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কর্ম ও জীবনীভিত্তিক আলোচনা সভায় এ কথা বলেন তিনি।

স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বলেন, ১৫ আগস্টের ঘাতকেরা বঙ্গবন্ধুকে সোনার বাংলার বাস্তবায়ন করার সুযোগ দেয়নি। তবে তারই সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে বিশ্বের ২০০টি দেশের মধ্যে ৩৫তম অর্থনীতির দেশে পরিণত করেছেন।

তিনি বলেন, আজ বাংলাদেশের যত অর্জন তার সবই সম্ভব হয়েছে, কারণ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের জন্য স্বাধীনতা এনে দিয়েছিলেন।

পাকিস্তানের বর্তমান অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক সংকট তুলে ধরে মন্ত্রী বলেন, আজকে বাংলাদেশের উন্নতি দেখে পাকিস্তানের মানুষ আফসোস করে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে এমন উচ্চতায় নিয়েছেন যে পাকিস্তানের বেশিরভাগ মানুষ মনে করে বাংলাদেশ পাকিস্তান থেকে সব ক্ষেত্রে এগিয়ে আছে, বর্তমানে বিশ্ব ব্যাংক এবং আইএমএফ এর তথ্য দ্বারাও এই ধারণা প্রমাণিত।

স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব মুহম্মদ ইবরাহিমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য। আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন- স্থানীয় সরকার বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ড. মলয় চৌধুরী, জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন কার্যালয়ের রেজিস্ট্রার জেনারেল মো. রাশেদুল হাসান, জাতীয় স্থানীয় সরকার ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক সালেহ আহমদ মোজাফফর, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী মো. সরোয়ার হোসেন প্রমুখ।