• শুক্রবার ১২ জুলাই ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ২৮ ১৪৩১

  • || ০৪ মুহররম ১৪৪৬

আইসিসি টি-২০ বিশ্বকাপ: বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া দ্বৈরথ

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২০ জুন ২০২৪  

নবম টি-২০ বিশ্বকাপের ক’দিন আগেও হয়তো কেউ ভাবেনি, সুপার এইটে খেলবে বাংলাদেশ। তবে সবাইকে চমকে দিয়ে যোগ্য দল হিসেবেই সেরা আটের লড়াইয়ে জায়গা করে নিয়েছে টাইগাররা। গ্রুপ পর্বে চার ম্যাচের তিনটিতেই জিতেছে তারা। ভাগ্য সাহায্য না করায় দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে মাত্র ৪ রানে হেরে যায় লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা।

এবারের আসরে ‘ডি’ গ্রুপের দ্বিতীয় দল হিসেবে সুপার এইটে উত্তীর্ণ হয়েছে বাংলাদেশ। এই পর্বের গ্রুপ-১ এ খেলবে তারা। আসরের সেমিতে পৌঁছাতে হলে শান্তদের হারাতে হবে অস্ট্রেলিয়া, ভারত ও আফগানিস্তানের মতো দলকে।

সুপার এইটে নিজেদের প্রথম ম্যাচে শুক্রবার মাঠে নামবে বাংলাদেশ। যেখানে তাদের প্রতিপক্ষ শক্তিশালী অস্ট্রেলিয়া। ম্যাচটি হবে ব্রিজটাউনের কিংসটন ওভালে।

গ্রুপ পর্বে দাপুটে ক্রিকেট খেলে চার ম্যাচেই জিতেছে অস্ট্রেলিয়া। এছাড়া অভিজ্ঞতা আর পরিসংখ্যান বিবেচনায়ও টাইগারদের যোজন যোজন এগিয়ে। এখন পর্যন্ত আইসিসির ইভেন্টে অজিদের বিপক্ষে জিততে পারেনি শান্ত-সাকিবরা।

তবে নিজেদের সবশেষ ১০ দেখায় অস্ট্রেলিয়াকে চারবার হারিয়েছে বাংলাদেশ। সেটিও আবার তিন বছর আগে, মিরপুরে। অজিদের বিপক্ষে নামার আগে বাংলাদেশের এতটুকু পরিসংখ্যানই স্বস্তি দিবে।

চলমান বিশ্বকাপে বাংলাদেশের বড় দুশ্চিন্তার কারণ টপ অর্ডার ব্যাটাররা। এখনো পর্যন্ত জ্বলে উঠতে পারেনি কেউই। যদিও নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে দুর্দান্ত ফিফটি করেছিলেন সাকিব আল হাসান। আর সবচেয়ে বেশি ১২৫ স্ট্রাইক রেটে ব্যাট করেছেন হৃদয়। মিডল অর্ডারে ভরসার নাম মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

বাংলাদেশকে অবশ্য সবচেয়ে বেশি স্বস্তিতে রাখছে বোলিং ইউনিট। গ্রুপ পর্বের লো স্কোরিং ম্যাচে বল হাতে আগুন ঝরিয়েছে মুস্তাফিজুর রহমান, তানজিম হাসান সাকিব ও তাসকিন আহমেদ। আর লেগ স্পিনে রীতিমতো ছড়ি ঘোরাচ্ছেন রিশাদ হোসেন।

অন্যদিকে ভারসাম্য নিয়ে প্রতিপক্ষকে গুঁড়িয়ে দিচ্ছে অস্ট্রেলিয়া। ব্যাট হাতে শক্তি দেখানোর পাশাপাশি বল হাতে দাপট দেখাচ্ছে অজিরা। ডেভিড ওয়ার্নার, মার্কাস স্টয়নিসরা তো প্রতিপক্ষকে বোলারদের জন্য আতঙ্কের নাম। আর বল হাতে গতির ঝড় তুলছেন মিচেল স্টার্ক, জস হ্যাজেলউড ও প্যাট ক্যামিন্সরা।

সুপার এই বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া দ্বৈরথে নজর থাকবে টাইগারদের বোলিং ইউনিটে। আর অজিদের জয়রথ থামাতে হলে টাইগারদের দিতে হবে নিজেদের সেরাটা।