• মঙ্গলবার   ০৪ অক্টোবর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ১৮ ১৪২৯

  • || ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

সর্বশেষ:
মুজিববর্ষে সরকারি ঘর পেয়েছে প্রায় ২ লাখ পরিবার: প্রধানমন্ত্রী আগামী প্রজন্মের জন্য পরিকল্পিত নগরায়ণের বিকল্প নেই: রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশ অঞ্চলের ৫০ লাখ ভিডিও সরিয়েছে টিকটক: টেলিযোগাযোগমন্ত্রী করতোয়ায় দেশের বৃহত্তম ওয়াই ব্রিজ হবে: রেলমন্ত্রী সুজন বিএনপি সুযোগ পেলে আবার নির্যাতন চালাবে: তোফায়েল আহমেদ

অফিস কক্ষে সিগারেট হাতে ফাইল সই তার নিত্যদিনের অভ্যাস

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২  

সরকারি বিধি অনুযায়ী পাবলিক প্লেসে ধূমপান আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। আছে জরিমানার বিধানও। কিন্তু সেই নিয়মকে যেন ধোরাই কেয়ার করলেন লালমনিরহাট জেলা রেজিস্ট্রার খালিদ মোহাম্মদ বিন আসাদ। তার এক হাতে সিগারেট ধরে অন্য হাতে ফাইল সই করার ভিডিও পাওয়া গেছে।

সরকার ধূমপান রোধে আইন প্রণয়ন করলেও সরকারি অফিসে বসেই চলছে আয়েশি ধূমপান। লালমনিরহাট জেলা রেজিস্ট্রার খালিদ মোহাম্মদ বিন আসাদ নিজ কার্যালয়ে বসেই একের পর এক সিগারেট টানেন। প্রায়ই তার এক থাকে হাতে সিগারেট, অন্য হাতে সই করেন সেবা গ্রহীতাদের ফাইলে। মূলত অফিসের বড় কর্মকর্তা হিসেবে বীরদর্পে অফিসে বসেই ধূমপান করেন তিনি।  

সম্প্রতি অফিসে বসে তার ধূমপান করার একটি ভিডিও পাওয়া গেছে। ধূমপানের দুর্গন্ধে তার কক্ষে অনেকেই ঢুকতে চান না।

নাম প্রকাশের অনিচ্ছুক একজন নিকাহ রেজিস্ট্রার বলেন, আমাদের ভলিয়ম বইসহ বিভিন্ন কাজে প্রায়ই জেলা রেজিস্ট্রারের কক্ষে যেতে হয়। অফিসে বসেই একের পর এক সিগারেট ধরান আমাদের জেলা রেজিস্ট্রার। দুর্গন্ধে তার কক্ষে যাওয়া কষ্টকর হয়। অফিসে যত লোকই থাকুক, তিনি সবার সামনেই ধূমপান করেন। এটা তার নিত্যদিনের অভ্যাস।

জেলা নিকাহ রেজিস্ট্রার সমিতির সভাপতি আমজাদ হোসেন বলেন, স্যারকে সিগারেট খেতে দেখিনি। তবে তার কক্ষটিতে প্রচুর সিগারেটের দুর্গন্ধ। যখন রেজিস্ট্রার স্যারের কক্ষে যাই, তখন রুমে এয়ার ফ্রেশনার স্প্রে করেন। তবুও দুর্গন্ধ আসে।

লালমনিরহাট জেলা রেজিস্ট্রার খালিদ মোহাম্মদ বিন আসাদ বলেন, দুপুরের খাবারের পরে সিগারেট খেয়েছি। তখন হয়তো কেউ ভিডিও করেছে।

অফিসে বসে প্রকাশ্যে ধূমপান অপরাধ কি না? -এমন প্রশ্নে তিনি কোনো সদুত্তর দেননি।