• বুধবার   ১০ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ২৬ ১৪২৯

  • || ১১ মুহররম ১৪৪৪

সর্বশেষ:
কম খরচে মাছের ভাসমান খাদ্য তৈরির যন্ত্র উদ্ভাবন শেকৃবি গবেষকের জনবিচ্ছিন্নদের ৭ দলীয় জোট রাজনীতিতে গুরুত্বহীন: তথ্যমন্ত্রী রংপুরে বাল্যবিয়ে ও নারী নির্যাতন বন্ধে শপথ নিলেন ২৫০ রিকশাচালক দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আবারো মনোনয়ন বাণিজ্যে তারেক বঙ্গবন্ধুকে সম্মানসূচক মরণোত্তর ডি-লিট ডিগ্রি দেবে ঢাবি

বন্যায় দুর্ভোগ লাঘবে সরকার বদ্ধপরিকর: টেলিযোগাযোগমন্ত্রী

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৭ জুন ২০২২  

ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, সরকার বন্যাদুর্গত মানুষের দুর্ভোগ লাঘবের পাশাপাশি বন্যা পরবর্তী পুনর্বাসনে সম্ভাব্য সব কিছু করতে বদ্ধপরিকর।

সোমবার নেত্রকোণা জেলার খালিয়াজুরীতে বন্যার্তদের জন্য চীনা প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ের দেওয়া ত্রাণসামগ্রী বিতরণ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে অনলাইনের যুক্ত হয়ে এ কথা বলেন তিনি।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, চলতি বন্যা পরিস্থিতি মোকাবিলা সত্যিই চ্যালেঞ্জিং। সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় অত্যন্ত সফলতার সঙ্গে চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করা সম্ভব হয়েছে।

বন্যাদুর্গত মানুষের কাছে ত্রাণ পৌঁছে দিতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, প্রশাসন ও সেনাবাহিনীর সদস্যসহ সাধারণ মানুষের সম্মিলিত প্রচেষ্টার প্রশংসা করে মন্ত্রী বলেন, বানভাসি মানুষের জন্য ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

তিনি আরো বলেন, শেখ হাসিনার সরকার জনগণ ও গ্রামকে গুরুত্ব দিয়েছে। বন্যাদুর্গত এলাকায় আমরা ক্ষতিগ্রস্ত ইন্টারনেট ও টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থা বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর মাধ্যমে পুনস্থাপনের মধ্য দিয়ে জীবনধারা সচল রাখতে সক্ষম হয়েছি। ভিস্যাট হাব স্থাপনের পাশাপাশি ইতোমধ্যে শতকরা ৯০ ভাগ মোবাইল টাওয়ার সচল করা হয়েছে।

পানিতে তলিয়ে যাওয়া টেলিফোন এক্সচেঞ্জগুলো দ্রুত সচল করার কথাও উল্লেখ করেন তিনি।

এ সময় বন্যাদুর্গতদের জন্য ত্রাণসামগ্রী সরবরাহের জন্য মন্ত্রী হুয়াওয়ে‘র প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। পরে, উপজেলা চেয়ারম্যান বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেন।

নেত্রকোণার জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন- খালিয়াজুরী উপজেলা চেয়ারম্যান রাব্বানী জব্বার, খালিয়াজুরী উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আতাউর রহমান, সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ এইচ এম আরিফুল ইসলাম, মেজর জিসানুল হায়দার, হুয়াওয়ে বাংলাদেশের বোর্ড মেম্বার লিও জেনসেন এবং  স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আবু ইসহাক।