• বৃহস্পতিবার   ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ১৯ ১৪২৯

  • || ০৯ রজব ১৪৪৪

সর্বশেষ:
ফিলিস্তিনিদের পাশে দাঁড়াতে মুসলিমদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান সংখ্যালঘু বলতে কোনো শব্দ নেই, আমরা সবাই বাঙালি: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী আইএমএফের ঋণই প্রমাণ করে দেশের অর্থনীতির ভিত্তি মজবুত: অর্থমন্ত্রী করোনা মহামারির মধ্যেও বাংলাদেশের অর্থনীতি ৩.৮% প্রসারিত হয়েছে শিক্ষা নিয়ে ব্যবসা করার মানসিকতা পরিহার করার আহ্বান রাষ্ট্রপতির

পরিত্যক্ত কূপ থেকে জাতীয় গ্রিডে ৮ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৩০ নভেম্বর ২০২২  

সিলেটের বিয়ানীবাজারে একটি পরিত্যক্ত কূপ থেকে দৈনিক আট মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস জাতীয় সঞ্চালন লাইনে যুক্ত হচ্ছে। সোমবার সন্ধ্যা থেকে গ্যাস সরবরাহ শুরু হয়।

এর ফলে এখন থেকে বিয়ানীবাজার থেকে মোট ১৫ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস গ্রিডে যাচ্ছে। সিলেট অঞ্চলের ১২টি কূপ থেকে সব মিলিয়ে ৯৯ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস সরবরাহ করা হচ্ছে।

সিলেট গ্যাস ফিল্ডস লিমিটেড (এসজিএফএল) সূত্রে জানা যায়, বিয়ানীবাজার ১ নম্বর কূপ থেকে ১৯৯১ সালে গ্যাস তোলা শুরু হয়। ২০১৪ সালে তা বন্ধ হয়ে যায়। ২০১৬ সালে আবার উত্তোলন শুরু হলেও ওই বছরের শেষ দিকে আবারও তা বন্ধ হয়ে যায়। ২০১৭ সাল থেকে কূপটি পরিত্যক্ত অবস্থায় ছিল। বাপেক্স ওই কূপে জরিপ করে গ্যাসের মজুত পায়।

গত ১০ সেপ্টেম্বর ওই কূপে ওয়ার্কওভার (পুনর্খনন) শুরু করে বাপেক্স। গত ১৭ নভেম্বর থেকে গ্যাসের সন্ধান মেলে। এ কূপে ৩ হাজার ২৫৪ মিটার গভীরে ৭০ বিলিয়ন ঘনফুটের বেশি গ্যাস মজুত আছে। দুই কূপ মিলে বিয়ানীবাজার ক্ষেত্রে ১০০ বিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস মজুত রয়েছে।

এসজিএফএল ব্যবস্থাপনা পরিচালক মিজানুর রহমান বলেন, ছয়টি নতুন কূপ খনন এবং আটটি কূপ ওয়ার্কওভারের মাধ্যমে ১৬৪ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস উৎপাদন বাড়ানোর পরিকল্পনা তাদের রয়েছে। বিয়ানীবাজার ১ নম্বর কূপে গ্যাসের চাপ রয়েছে ৩ হাজার ২৭৫ পিএস, যা দেশের মধ্যে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ।

তিনি আরও বলেন, এখান থেকে ১৮ ব্যারেল কনডেন্সড গ্যাস পাওয়া যাবে। এ কূপ থেকে আগামী ১০ বছর পর্যন্ত গ্যাস তোলা যাবে বলে জানান তিনি। এ গ্যাস জাতীয় সঞ্চালন লাইনে সরবরাহ করা সম্ভব হবে।