• মঙ্গলবার   ০৪ অক্টোবর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ১৮ ১৪২৯

  • || ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

সর্বশেষ:
মুজিববর্ষে সরকারি ঘর পেয়েছে প্রায় ২ লাখ পরিবার: প্রধানমন্ত্রী আগামী প্রজন্মের জন্য পরিকল্পিত নগরায়ণের বিকল্প নেই: রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশ অঞ্চলের ৫০ লাখ ভিডিও সরিয়েছে টিকটক: টেলিযোগাযোগমন্ত্রী করতোয়ায় দেশের বৃহত্তম ওয়াই ব্রিজ হবে: রেলমন্ত্রী সুজন বিএনপি সুযোগ পেলে আবার নির্যাতন চালাবে: তোফায়েল আহমেদ

দুই অর্থনৈতিক অঞ্চলে জমি পাচ্ছে ৬ কোম্পানি

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২  

দুই অর্থনৈতিক অঞ্চলে জমি পাচ্ছে ৬ কোম্পানি                            
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগর ও সাবরাং ট্যুরিজম পার্কে একদিনে ছয়টি কোম্পানিকে ১৭ একর জমি বরাদ্দ দিয়েছে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ (বেজা)।

এ দুই অর্থনৈতিক অঞ্চলে (ইজেড) হেলথকেয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, ইফাদ মোটর্স, ডার্ড গ্রুপ ও ইস্ট ওয়েস্ট ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলস লিমিটেডের ছয় কোম্পানি এসব জমি ইজারা পাচ্ছে। গতকাল বুধবার আগারগাঁওয়ে বেজা কার্যালয়ে পৃথক চুক্তিতে সই করেন কোম্পানিগুলোর প্রতিনিধি এবং বেজার নির্বাহী সদস্য (প্রশাসন ও অর্থ) আব্দুল আজিম চৌধুরী।

এসব কোম্পানির মধ্যে হেলথকেয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগরে আরও ১০ একর জমি পাচ্ছে। আর সাবরাং ট্যুরিজম পার্কে ডার্ড গ্রুপের তিন কোম্পানি পাঁচ একর, ইস্ট ওয়েস্ট ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরস এক একর এবং ইফাদ মোটর্সকে এক একর জমি দেওয়া হয়েছে।

এর আগে ১৯৯৬ সালে বাংলাদেশে প্রতিষ্ঠিত হেলথকেয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগরে ৩০ একর জমিতে তাদের দ্বিতীয় কারখানা স্থাপনের কাজ শুরু করে। এদিন কোম্পানিটিকে আরও ১০ একর ভূমি বরাদ্দ দেওয়া হয়।

এ শিল্পনগরে নতুন পাঁচটি প্ল্যান্ট স্থাপনে প্রায় ৪০ কোটি ডলার বিনিয়োগের পরিকল্পনা নিয়ে এগোচ্ছে কোম্পানিটি, যাতে প্রায় সাত হাজার কর্মসংস্থান হবে।

কোম্পানির প্রকল্প প্রস্তাব অনুযায়ী, রপ্তানিযোগ্য সাধারণ ফর্মুলেশন, অভ্যন্তরীণ প্রয়োজন মেটাতে সাধারণ ফর্মুলেশন, অ্যাকটিভ ফার্মাসিউটিক্যাল ইনগ্রিডিয়েন্টস, পেনিসিলিন ও বায়োটেক প্রডাক্টশন করা হবে এসব প্ল্যান্টে।

এদিন ভূমি ইজারা চুক্তি সই করা ইফাদ গ্রুপের সহযোগী প্রতিষ্ঠান ইফাদ মোটর্স সাবরাং ট্যুরিজম পার্কে ৩৭০ কক্ষের ১০ ​​তলা তিন তারকা হোটেল নির্মাণ করবে। এতে বিনোদন ও কনভেনশন সেন্টারের জন্য প্রয়োজনীয় অবকাঠামো থাকবে বলে বিনিয়োগ প্রস্তাবে উল্লেখ করেছে।

অপরদিকে ১৯৮৪ সালে যাত্রা শুরু করা ডার্ড গ্রুপ বাংলাদেশে গার্মেন্টস, টেক্সটাইল, ইঞ্জিনিয়ারিং, অবকাঠামো, সফটওয়্যার ও কৃষি খাতে ব্যবসা করছে।

সাবরাং ট্যুরিজম পার্কে এ গ্রুপের তিনটি কোম্পানি ডার্ড কমপোজিট টেক্সটাইল ২ একর, দীপ্ত গার্মেন্টস ২ একর ও ডার্ড গার্মেন্টস এক একর জমি পেয়েছে। এসব জমিতে হোটেল, মোটেল, কটেজ ও রিসোর্ট স্থাপন করার কথা অনুষ্ঠানে জানানো হয়।

এছাড়া ১৯৮৮ সালে দেশে ট্রাভেল এজেন্সি ব্যবসা শুরু করা ইস্ট ওয়েস্ট ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরস সাবরাং ট্যুরিজম পার্কে এক একর জমিতে হোটেল স্থাপনের জন্য বিনিয়োগ প্রস্তাব জমা দিয়েছে।

চুক্তি সই অনুষ্ঠানে বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান শেখ ইউসুফ হারুন, হেলথকেয়ার ফার্মাসিউটিক্যালসের উপ ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুহাম্মদ হালিমুজ্জামান বক্তব্য দেন।

বেজা চট্টগ্রামের মিরসরাই ও ফেনীর সোনাগাজী উপজেলায় প্রায় ৩০ হাজার একর জমিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগর গড়ে তুলছে। বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র, সমুদ্র বন্দর, কেন্দ্রীয় বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, পানি শোধনাগার, আবাসিক এলাকা, বাণিজ্যিক এলাকা, বিশ্ববিদ্যালয় ও হাসপাতাল থাকছে এ নগরীতে।

অপরদিকে কক্সবাজারের টেকনাফে সাগর তীরে ৯০০ একর জমি নিয়ে গড়ে তোলা হচ্ছে সাবরাং ট্যুরিজম পার্ক। পাহাড় ও সাগরের বৈচিত্র্যময় দৃশ্য, সুদীর্ঘ বালুকাময় সৈকত এ স্থানকে আকর্ষণীয় পর্যটন কেন্দ্রে পরিণত করবে বলে মনে করছে বেজা।