• রোববার   ২৯ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৫ ১৪২৯

  • || ২৬ শাওয়াল ১৪৪৩

সর্বশেষ:
বাংলাদেশের রাজনৈতিক স্থিতিশীলতার প্রশংসা পর্তুগালের মরণোত্তর ‘দ্যাগ হ্যামারশোল্ড’ পেলেন দুই বাংলাদেশি শান্তিরক্ষী দেশে ভেনামি চিংড়ি চাষে আগ্রহ বাড়ছে কৃষকদের শিল্পনগরী ও অর্থনৈতিক অঞ্চল হচ্ছে দিনাজপুর: হুইপ ইকবালুর রহিম আরও সময় নিয়ে বৈঠকের প্রস্তুতি নিতে চায় দুই ঢাকা-দিল্লি

৪ লক্ষ মানুষের মাঝে যুবলীগের ইফতার ও ঈদ সামগ্রী বিতরণ

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৩ এপ্রিল ২০২২  

বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের মূলমন্ত্র গণতন্ত্র, শোষণমুক্ত সমাজ অর্থাৎ সামাজিক ন্যায় বিচার, জাতীয়তাবাদ, ধর্ম নিরপেক্ষতা তথা জাতীয় চার মূলনীতিকে সামনে রেখে বেকারত্ব দূরীকরণ, দারিদ্র্য বিমোচন, শিক্ষা সম্প্রসারণ, গণতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপদান, অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ ও আত্মনির্ভরশীল অর্থনীতি গড়ে তোলা এবং যুবসমাজের ন্যায্য অধিকারসমূহ প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ১৯৭২ সালের ১১ নভেম্বর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশে এদেশের যুব আন্দোলনের পথিকৃৎ শহীদ শেখ ফজলুল হক মণি বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ প্রতিষ্ঠা করেন।

প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ এদেশের যে কোন ক্রান্তিকালে গণতন্ত্র রক্ষা ও অসহায় মানুষের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারিতেও মানুষের পাশে রয়েছে যুবলীগ। পরিচিতি পেয়েছে মানবিক যুবলীগ হিসেবে। আপনারা দেখেছেন এই করোনার মহামারি যখন প্রকোপ আকার ধারণ করেছিল তখনই মানবতার ঢাল হয়ে দেশব্যাপী মানুষের পাশে ছিল যুবলীগ। লকডাউনের ফলে অনেক মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়ে, তখন বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার নির্দেশে যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস্ পরশ ও সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ মাইনুল হোসেন খান নিখিল-এর আহ্বানে যুবলীগের নেতাকর্মীরা যার যার সামর্থ্য অনুযায়ী অসহায় ও কর্মহীন মানুষের পাশে এসে দাঁড়িয়েছিল। করোনা মহামারির এই দীর্ঘ সময়ে প্রায় ৮৬ লক্ষ অসহায় মানুষকে খাদ্য সহায়তা দিয়েছে যুবলীগ। শুধু খাদ্য সহায়তাই নয়, করোনা আক্রান্ত রোগীকে চিকিৎসা সেবা, সাধারণ মানুষের জন্য টেলিমেডিসিন সেবা, ফ্রি-অক্সিজেন ও ফ্রি-অ্যাম্বুলেন্স সেবা, করোনায় মৃত ব্যক্তির দাফন/সৎকারে সহায়তা করা এমনকি করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত অসহায় কৃষকের ধান কেটে ঘরে তুলে দিয়েছে যুবলীগ। তারই ধারাবাহিকতা এই পবিত্র মাহে রমজানেও ধরে রেখেছে যুবলীগ।

গত ৩ এপ্রিল, ২০২২ইং তারিখে ২৩, বঙ্গবন্ধু এভিনিউস্থ দলীয় কার্যালয় প্রাঙ্গণে বাংলাদেশ আওয়মী যুবলীগের উদ্যোগে পবিত্র রমজান মাস উপলক্ষে মাসব্যাপী সমাজের পিছিয়ে পড়া মানুষের মাঝে ইফতার ও ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণের শুভ উদ্বোধন করেন যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস্ পরশ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ মাইনুল হোসেন খান নিখিল।

বঙ্গবন্ধুকন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার নির্দেশে ও যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস্ পরশের আহ্বানে সাড়া দিয়ে যুবলীগে নেতা-কর্মীরা প্রথম রমজান থেকে ২০ রমজান পর্যন্ত দেশব্যাপী প্রায় ৪,৬৬,৫০০ জন সমাজের পিছিয়ে পড়া মানুষের মাঝে ইফতার ও ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ করেছে। ঈদ উপহার সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে শাড়ী, লুঙ্গি, চাল, ডাল, আলু, পেঁয়াজ, ১ লিটার সয়াবিন তেল, লবণ, ২ প্রকারের সেমাই, চিনি, দুধসহ বিভিন্ন তৈজসপত্র।

যুবলীগের বিভিন্ন শাখা ভিত্তিক ইফতার ও ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণের তালিকা : কেন্দ্রীয় কমিটি-১০,০০০, ঢাকা মহানগর উত্তর-১৫,০০০, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ-১২,০০০ (আগামী ২৫ এপ্রিল বড় কর্মসূচি রয়েছে), রংপুর-৩,০০০, রংপুর মহানগর-৪,০০০, গাইবান্ধা-৬,০০০, কুড়িগ্রাম-৬,০০০, ঠাকুরগাঁও-৭,০০০, লালমনিরহাট-৩,০০০, নীলফামারী-২,০০০, পঞ্চগড়-২,৫০০, দিনাজপুর-৭,০০০, রাজশাহী-৩,৫০০, রাজশাহী মহানগর-২,৫০০, পাবনা-২,০০০০, সিরাজগঞ্জ-২,০০০, নাটোর-২,০০০, বগুড়া-১৭,০০০, জয়পুরহাট-৩,০০০, নওগাঁ-৫,০০০, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩,৫০০, খুলনা-৫,০০০, খুলনা মহানগর-৯,০০০, যশোর-১২,০০০, ঝিনাইদহ-৬,০০০, মেহেরপুর-২,৫০০, কুষ্টিয়া-৬,০০০, মাগুড়া-৩,০০০, নড়াইল-২,৫০০, বাগেরহাট-৬,০০০, সাতক্ষীরা-৪,০০০, বরিশাল-১,৫০০, বরিশাল মহানগর-১,০০০, পটুয়াখালী-১৫,০০০, ভোলা-২,০০০, ঝালকাঠী-২,০০০, বরগুনা-৫,০০০, পিরোজপুর-৪,০০০, ঢাকা জেলা-৬,০০০, গাজীপুর-৫,০০০, গাজীপুর মহানগর-২০,০০০, মানিকগঞ্জ-১০,০০০, টাঙ্গাইল-১০,০০০, নরসিংদী-২,০০০, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫,০০০, মুন্সিগঞ্জ-২,০০০, নারায়ণগঞ্জ-৬,০০০, নারায়ণগঞ্জ মহানগর-১,০০০, গোপালগঞ্জ-১,২০০, শরীয়তপুর-১,০০০, মাদারীপুর-১,০০০, রাজবাড়ী-১,০০০, ফরিদপুর-৪,০০০, ময়মনসিংহ-৮,০০০, ময়মনসিংহ মহানগর-৬,০০০, জামালপুর-৬,০০০, নেত্রকোণা-৮,০০০, শেরপুর-২,০০০, সিলেট-২,০০০, সিলেট মহানগর-৪,০০০, হবিগঞ্জ-৩,০০০, সুনামগঞ্জ-২,৫০০, মৌলভীবাজার-৬,০০০, কুমিল্লা মহানগর-৩,৫০০, কুমিল্লা উত্তর-২,৫০০, কুমিল্লা দক্ষিণ-২,০০০, চাঁদপুর-৬,০০০, লক্ষ্মীপুর-৭,০০০, নোয়াখালী-১০,০০০, ফেনী-২,০০০, চট্টগ্রাম মহানগর-৬০,০০০, চট্টগ্রাম দক্ষিণ-১২,০০০, চট্টগ্রাম উত্তর-৫,০০০, বান্দরবান-২,০০০, রাঙ্গামাটি-৪,০০০, খাগড়াছড়ি-৩,০০, কক্সবাজার-৩,০০০।